logo

   

যে জানে না তাকে জানাতে হবে, যে জানে তাকে সহযোগিতা করতে হবে - হাসান

Photo

(রাজশাহীকে বলা হয় বাংলাদেশের শিক্ষা নগরী। পুরো রাজশাহী জুড়েই অসংখ্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ছড়িয়ে আছে। তারা প্রতিনিয়ত আগামিদিনের বাংলাদেশের কর্নধার তৈরী করে যাচ্ছে। রাজশাহী থেকেই গড়ে ওঠা কিছু মেধাবী তরুন দেশ-বিদেশে রাজশাহীর মুখ উজ্বল করে চলেছে। এমনই একজন আবু সাঈদ মাহ্‌ফুজ হাসান। আমাদের রাজশাহীর সঙ্গে কিছে সময় দিয়েছেন এ তরুন। খোলামেলা কথা বলেছেন তার ব্যক্তিগত জীবন, ভবিষ্যত পরিকল্পনা এবং রাজশাহীর আইটির ভবিষ্যত নিয়ে। )


আমাদের রাজশাহী ডট কম :- আপনার পুরো নাম কি?
হাসান:- আবু সাঈদ মাহ্‌ফুজ হাসান

আমাদের রাজশাহী ডট কম :- আপনার পড়াশোনার সম্পর্ক কিছু বলুন।
হাসান:- এম. এস ইন আই,আই,সিটি (বুয়েট), (চলমান),
বি. এস সি ইন কম্পিউটার সায়েন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং (ডুয়েট), ২০০৮।

আমাদের রাজশাহী ডট কম :- বর্তমানে আপনি কোথায় থাকেন?
হাসান:- ৪৪৪/১, আরজত পাড়া, মহাখালী, ঢাকা।

আমাদের রাজশাহী ডট কম :- পড়াশোনার ক্ষেত্রে আপনি কেন কম্পিউটার সায়ন্সেক বেছে নিলেন?
হাসান:- বর্তমান যুগ তথ্য প্রযুক্তির যুগ। এই তথ্য প্রযুক্তির মুল চালক হল কম্পিউটার। তাই এই যুগে টিকে থাকতে হলে কম্পিউটার সম্বন্ধে ভাল ধারনা থাকা অত্যন্ত জরুরি। আর কম্পিউটার সায়েন্স হল অপার সম্ভাবনার একটি ক্ষেত্র। এখানে যে চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করে টিকে থাকতে পারবে সেই উন্নতি করতে পারবে।

আমাদের রাজশাহী ডট কম :- কিভাবে কম্পিউটার ইঞ্জিনিয়ার হলেন?
হাসান:- ১৯৯৯ এর কোন এক দিন আমার এসএসসি পরিক্ষার পরে আব্বা ডেকে জিজ্ঞাসা করেছিলেন, কি হতে চাই?, তাকে বলেছিলাম কম্পিউটার ইঞ্জিনিয়ার হব। তার পরে আর কোন দিন এই সিদ্ধান্তটা নিয়ে পিছনে ফিরে দেখিনি। সিদ্ধান্ত ঠিক ছিল না ভুল ছিল ভাবিনি। শুধু ভেবেছি হতে হবে। তার পরে এতদুর পথচলা শেষে এখনও এক বারের জন্যেও মনে হয়নি আমার সিদ্ধান্ত ভুল ছিল। চাইলেই আমি অন্য কোন দিকে যেতে পারতাম। অনেক সময়ে অনেকে ভয় দেখিয়েছে কম্পিউটারের ভবিষ্যৎ ভালো না। তুমি অন্য কোন দিকে শীফ্‌ট কর, করিনি। একটাই চিন্তা ছিল মাথায় সফল হতে হবে। আমার জন্য না বাবা - মার জন্য। আল্লাহর কাছে এই কথা কখনও বলিনি সফলতা দাও যাতে আমি উন্নতি করতে পারি, শুধু বলেছি মাবুদ বাবা-মা এর মুখ যেন উজ্জল করতে পারি।

আমাদের রাজশাহী ডট কম :- আপনার কর্মস্থল সম্পর্কে বলুন
হাসান:- বর্তমানে ডাচ্‌ - বাংলা ব্যাংক লিমিটেড এর এসিসটেন্ট অফিসার (ব্যাংকিং সফ্‌টওয়্যার) হিসাবে কর্মরত।

আমাদের রাজশাহী ডট কম :- আপনার ভবষ্যিত পরকিল্পনা কি?
হাসান:- বাংলাদেশের বিশেষ করে রাজশাহীর তথ্য প্রযুক্তির উন্নতির জন্য কাজ করার ইচ্ছা আছে।

আমাদের রাজশাহী ডট কম :- আপনি বর্তমানে কোন আইটি কর্মকান্ডে জড়তি কিনা?
হাসান:- বর্তমানে আমি একটি e-commerce ( www.muktobazaar.com ) এর সাথে জড়িত।

আমাদের রাজশাহী ডট কম :- রাজশাহীর আইটির ভবিষ্যত কেমন?
হাসান:- আইটি প্রফেশনালদের কাজের জন্য প্রয়োজন শান্তি-পুর্ণ নিরিবিলি পরিবেশ, এবং দক্ষ জনশক্তি। সে দিক দিয়ে রাজশাহী বাংলাদেশের জেলা গুলোর মধ্যে অত্যন্ত উপযুক্ত। আর তাই, ইনশাল্লাহ শিক্ষা নগরী রাজশাহী যে একদিন বাংলাদেশের আইটরি কেন্দ্রবিন্দুতে পরিনত হবে, এ বিষয়ে কোন সন্দেহ নেই ।

আমাদের রাজশাহী ডট কম :- রাজশাহীতে আইটি উন্নয়নে আপনার উদ্যোগ ও মতামত কি?
হাসান:- পৃথিবীতে কোন ভাল কাজ এমনি এমনি হয়নি। এ জন্য কিছু উদ্যোগী মানুষের আন্তরিক সহযোগিতা একান্ত জরুরি। আমরা যারা আইটির সাথে জড়িত এ দায়িত্ব তাদের নিতে হবে। নিজে কাজ করতে হবে, যে জানে না তাকে জানাতে হবে, যে জানে তাকে সহযোগিতা করতে হবে।

আমাদের রাজশাহী ডট কম :- রাজশাহীতে আইটি কর্মকান্ডে প্রধান বাধা কি কি বলে আপনি মনে করেন?
হাসান:- আইটি কর্মকান্ডের ক্ষেত্রে নিজের ক্ষমতা সম্বন্ধে না জানাটা একটা বড় বাধা। ”আমি কি এই কাজটা করতে পারবো?” এই ভয় আমাদের মন থেকে সর্ব প্রথমে দুর করতে হবে।

আমাদের রাজশাহী ডট কম :- বাংলাদশে সরকার রাজশাহীকে আইটি নগরী হিসেবে গড়ার পরকিল্পনা করেছেন। এ সম্পর্ক আপনার অভিমত কি?
হাসান:- রাজশাহীর একজন আইটি প্রফেশনাল হিসাবে আমি অবশ্যই একে সাধুবাদ জানাই। আমি আগেই বলেছি যে রাজশাহী আইটির জন্য একটি সম্ভবনাময় এলাকা। সরকারী সহযোগিতা পেলে এখানে আইটি দ্রুত উন্নতি করবে বলে আমি মনে করি।

আমাদের রাজশাহী ডট কম :- বাংলাদশে সরকার অনলাইন ব্যাংকিং চালুর অনুমতি দিয়েছেন। রাজশাহীতে এর কোন প্রভাব পড়বে বলে আপনি কি মনে করেন?
হাসান:- e-commerce বাংলাদেশের জন্য একটি সম্ভবনাময় একটি দিক। রাজশাহীতে এর সম্ভবনা অনেক উজ্জল। কারণ রাজশাহীর সাথে ঢাকার যোগাযোগ ব্যবস্থা খুবই ভালো। তাছাড়া এখানে শ্রম মূল্য ও অনেক কম। তাই রাজশাহীতে e-commerce দ্রুত প্রসার লাভ করবে বলে আমি মনে করি।

আমাদের রাজশাহী ডট কম :- আপনি আর কি কি কর্মকান্ডে জড়িত?
হাসান:- আমি RAAI International এর সফ্‌টওয়্যার ডেভেলোপমেন্ট এর সাথে জড়িত।

আমাদের রাজশাহী ডট কম :- এত ব্যস্ততার মাঝেও আমাদেরকে সময় দেবার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ।
হাসান:- আপনাকেও অনেক ধন্যবাদ।

2010-01-31


এই পাতাটি ৯৭৩ বার প্রদর্শিত হয়েছে।


 মন্তব্য করতে লগিন করুন


  
.