logo

   

বিস্তারিত সংবাদ

News Photo উৎকণ্ঠার মধ্যেই কোপেনহেগেনে চলছে জাতিসংঘের জলবায়ু সম্মেলন
উৎকণ্ঠার মধ্যেই কোপেনহেগেনে চলছে জাতিসংঘের জলবায়ু সম্মেলন। কিছুক্ষনের মধ্যেই শেষ হতে চলেছে কোপেনহেগেনে জাতিসংঘের জলবায়ু সম্মেলন। অথচ এখনও পর্যন্ত কোনো সিদ্ধান্তে পৌঁছাতে পারেনি ১৯৩টি দেশের প্রতিনিধিরা।

৭ ডিসেম্বর থেকে শুরু হওয়া জাতিসংঘের জলবায়ু সম্মেলনের প্রথম ১০ দিনে যে সকল বিষয় নিয়ে বিতর্ক হয়েছে তা যতটা না পৃথিবীকে ঠাণ্ডা করার উপায় নিয়ে তার চেয়ে বেশি আর্থিক সাহায্য নিয়ে।

ইউরোপীয় ইউনিয়নের সাহায্যের ঘোষণাকে প্রত্যাখ্যান করেছে গরীব দেশগুলো। তবে বড় খেলোয়াড় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র মুখ খোলায় পাল্টে যেতে পারে গোটা পরিস্থিতি। প্রতি বছর ১০০ বিলিয়ন মার্কিন ডলারের তহবিল গঠনের প্রতিশ্রুতি দিয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। জাপানের প্রস্তাব প্রতি বছর ১৫ বিলিয়ন ডলার। যদিও অনুন্নত, উন্নয়নশীল ও আফ্রিকার দেশগুলোর দাবি অনুযায়ী প্রতি বছর সাহায্য দরকার প্রায় এক হাজার বিলিয়ন ডলার।

অর্থ বন্টনের ফয়সালা করতে গিয়ে মূল বিষয় কার্বন নির্গমনের হার নিয়ে আলোচনা অনেকটাই থমকে গেছে। জলবায়ু পরিবর্তন রোধের একটি অভিন্ন রূপরেখা তৈরীর ক্ষেত্রে এখনও একমত হতে পারেননি বিশ্বনেতারা। একমাত্র জার্মানি ছাড়া অন্য কোনো দেশ ২০২০ সাল নাগাদ কার্বন নির্গমনের হার ২৫ ভাগ কমাতে রাজি হয়নি। তবে কার্বন নির্গমন হারের আন্তর্জাতিক পর্যালোচনায় চীনের রাজি হওয়ায় আলোচনা এক ধাপ এগুবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

আর এতসব বিতর্কের মধ্যে বৈশ্বিক উষ্ণায়ন রোধের মূল ইস্যুটিই চাপা পড়ে গেছে। জাতিসংঘের বিজ্ঞানীদের মতে বিশ্বের তাপমাত্রা ২ ডিগ্রির বেশী বাড়লেই ৪০ বছরের মধ্যে আবাস হারাবে বিশ্বের ১০০ কোটি মানুষ।

কিন্তু শিল্পোন্নত ও উন্নয়নশীল দেশগুলো এখন পর্যন্ত যে সব পদক্ষেপের কথা বলেছে তা বিচার করলে বিশ্বের তাপমাত্রা বৃদ্ধি ৩ ডিগ্রির নিচে নামানো কিছুতেই সম্ভব নয়।

পাতাটি ৩৩৯ বার প্রদর্শিত হয়েছে।

সংগ্রহকারী:

 মন্তব্য করতে লগিন করুন