logo

   

বিস্তারিত সংবাদ

News Photo রাজশাহী নগরীতে বাড়ছে গাড়ি বাড়ছে যানজট
একটি আদর্শ নগরীতে যেটুকু রাস্তা থাকা দরকার, তার মাত্র সাড়ে পাঁচ শতাংশ আছে রাজশাহী মহানগরীতে। অপরিসর এসব রাস্তায় চলাচল করে ২০ হাজার রিকশা ও প্রায় চার হাজার ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা। প্রতিদিনই বাড়ছে এ সংখ্যা। ফলে নগরীতে ভয়াবহ যানজট সৃষ্টি হয়েছে। যানজট মোকাবিলায় ট্রাফিক পুলিশ মাঝেমধ্যে বিশেষ ব্যবস্থা নিলেও সমস্যা কাটছে না। রাজশাহী সিটি করপোরেশন সূত্রে জানা গেছে, রাজশাহীতে ছোট-বড় মিলিয়ে ৩২০ কিলোমিটার রাস্তা রয়েছে। এই রাস্তায় রিকশা, হিউম্যান হলার, ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা ও অন্যান্য যানবাহন চালাচল করে। এর মধ্যে সিটি করপোরেশনের লাইসেন্সভুক্ত রিকশা রয়েছে ২০ হাজার। এ ছাড়া নিবন্ধিত ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা রয়েছে দুই হাজার ৭৫০টি। আরো এক হাজারের বেশি নিবন্ধনের অপেক্ষায় রয়েছে। বিভিন্ন এলাকা থেকে মানুষ প্রতিদিন নগরীর প্রাণকেন্দ্র সাহেববাজারে আসে। সকাল আটটা থেকে মানুষের ঢল নামে এখানে। নগরীর উত্তরের শিরোইল বাসস্ট্যান্ড, রেলস্টেশন, রেলগেট; নওগাঁ-রাজশাহী সড়ক; পশ্চিমে আদালতপাড়া এবং পুবে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় ও প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় এলাকা থেকে মূলত রিকশা ও হিউম্যান হলারে করে মানুষ সাহেব বাজারে আসে। এই যানবাহনের সঙ্গে সম্প্রতি যুক্ত হয়েছে ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা। রাজশাহী মহানগর পুলিশের ট্রাফিক পরিদর্শক রায়হান ইবনে রহমান বলেন, পরিবেশবান্ধব হলেও ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা নগরীতে যানজটের অন্যতম কারণ। একটি ব্যাটারিচালিত অটোরিকশার দৈর্ঘ্য ১০ ফুট। চার হাজার অটোরিকশা ৪০ হাজার ফুট জায়গা দখল করে রাখছে। রাজশাহী বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের প্রধান প্রকৌশলী আরজাদ হোসেন বলেন, ব্যাটারিচালিত অটোরিকশায় চার্জ করার কারণে বিদ্যুতের ওপর চাপ বাড়ছে। কী পরিমাণ বাড়তি বিদ্যুৎ খরচ হচ্ছে তা নির্ধারণে তারা কাজ শুরু করেছেন।

ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক শ্যাম প্রামাণিক জানান, প্রতিদিন নগরীতে প্রায় ৩০টি করে ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা নামছে। এগুলোর চালকেরা ট্রাফিক সিগন্যাল বোঝেন না স্বীকার করে তিনি বলেন, এসব কারণে যানজট সৃষ্টি হচ্ছে।

রাজশাহী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (আরডিএ) নগর পরিকল্পনার দায়িত্বে থাকা অথরাইজড কর্মকর্তা আবুল কালাম আজাদ বলেন, একটি আদর্শ শহরের ২০ থেকে ২৫ শতাংশ রাস্তা থাকা উচিত। কিন্তু নগরীতে রাস্তা আছে মাত্র পাঁচ দশমিক ৬২ শতাংশ। আবার যে পরিমাণ রাস্তা আছে তাতে গাড়ি পার্ক করার ব্যবস্থা নেই। ফলে গাড়িগুলো সব সময় রাস্তা দখল করে রাখছে। এ অবস্থা চলতে থাকলে আগামী এক বছরে অবস্থা আরো ভয়াবহ হবে।

পাতাটি ৩৬৯ বার প্রদর্শিত হয়েছে।

সংগ্রহকারী:

 মন্তব্য করতে লগিন করুন