logo

   

বিস্তারিত সংবাদ

News Photo পাকিস্তানে বাঁধ ভেঙে লাখো মানুষ নতুন করে বিপন্ন
বন্যার আশঙ্কায় পাকিস্তানের দক্ষিণাঞ্চলের কয়েকটি শহরের বিপন্ন লাখ লাখ বাসিন্দাকে অন্যত্র সরিয়ে নেয়ার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। শুক্রবার বিবিসি অনলাইনের এক খবরে জানা গেছে, গত এক সপ্তাহে মৌসুমী বৃষ্টিপাতের কারণে সৃষ্ট বন্যায় সিন্ধু নদের বাঁধ ভেঙে বেশ কিছু গ্রাম প্লাবিত হয় এবং নদ তীরের অনেক জমি তলিয়ে যায়। একমাত্র থাট্টা জেলা থেকেই তিন লাখ লোককে সরিয়ে নেয়ার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।
তালেবানের হুমকির পর জাতিসংঘ পাকিস্তানের বন্যাদুর্গতদের সাহায্যে নিয়োজিত ত্রাণকর্মীদের নির্বিঘ্নে কাজ করার বিষয়টি পর্যালোচনা করছে।
একজন মার্কিন কর্মকর্তা জানিয়েছেন, পাকিস্তানে বন্যাদুর্গতদের ত্রাণ সরবরাহে অংশ নেয়া বিদেশিদের ওপর হামলা চালানোর পরিকল্পনা করছে তালেবানরা।
এদিকে পাকিস্তানে বিদেশি ত্রাণকর্মীদের উপস্থিতি গ্রহণযোগ্য নয় বলে জানিয়েছেন তালেবানের এক মুখপাত্র। জাতিসংঘ বলছে, পাকিস্তানে বন্যাদুর্গত হয়েছে প্রায় এক কোটি ৭০ লাখ লোক। এ বন্যায় প্রায় ১২ লাখ ঘরবাড়ি ধ্বংস এবং ৫০ লাখ লোক আশ্রয়হীন হয়ে পড়েছে।
এদিকে সন্ত্রাসী দলগুলোর কাছ থেকে সরকারের প্রতি আগেই আহ্বান আসে, যেন বিদেশিদের কাছ থেকে বিশেষ করে পশ্চিমা দেশগুলোর কাছ থেকে কোনো সাহায্য না নেয়া হয়। শুধু তাই নয়, প্রয়োজনে তারা নিজেরাই অর্থ সহায়তা দেবে—এমন কথাও বলে তারা। এরপর বিভিন্ন সাহায্য সংস্থার ব্যানারে বন্যাপীড়িতদের মধ্যে ত্রাণ বিরতরণ শুরু করে এই সন্ত্রাসী গ্রুপগুলো। কিন্তু যে দলগুলোর বিপক্ষে পাকিস্তান সরকারের মরণকামড়, সেই গ্রুপের কাছ থেকে সহায়তা! তা তো আর হতে পারে না। তাই পরবর্তীতে সন্ত্রাসের তালিকাভুক্ত ঐ সব প্রতিষ্ঠানের ত্রাণ কার্যক্রম নিষিদ্ধ করে সরকার। অবশ্য এ জন্য পশ্চিমা বিশ্ব, বিশেষ করে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বিশেষ চাপ ছিল বলেও জানাচ্ছে কোনো কোনো সংবাদ মাধ্যম। আর তার পর পরই নাকি ক্ষেপে যায় তালেবান গোষ্ঠী। বন্যাপীড়িত এলাকায় কর্মরত সকল ত্রাণকর্মীর নিরাপত্তার বিষয়টি পরীক্ষা-নিরীক্ষা করা শুরু করেছে জাতিসংঘ।
বিদেশি ত্রাণকর্মী এবং সরকারের মন্ত্রীরাও রয়েছেন তাদের হিটলিস্টে। এক পাকিস্তানি জেনারেলের কথায়, ‘তালেবান গোষ্ঠী আসলে ভীত হয়ে পড়েছে। তারা মনে করছে, পশ্চিমা দেশগুলো থেকে আসা ত্রাণকর্মীরা যেভাবে সাহায্য করছে, তাতে মানুষের মধ্যে তালেবানের জনপ্রিয়তা কমে যাবে। লোকে বুঝতে পারবে তাদের কাজকর্ম। আর মুখ ঘুরিয়ে ফেলবে জনগণ। আসলে এটাই মেনে নিতে পারছে না তালেবানরা। তাই ত্রাণকর্মীদের ওপর হামলার মতো ঘৃণ্য পরিকল্পনায় নেমেছে তারা।

পাতাটি ৩২৬ বার প্রদর্শিত হয়েছে।

সংগ্রহকারী:

 মন্তব্য করতে লগিন করুন