logo

   

বিস্তারিত সংবাদ

News Photo ১০ বছর ধরে লাদেনের অবস্থান অজ্ঞাত: সিআইএ প্রধান
আল-কায়েদাপ্রধান ওসামা বিন লাদেনের প্রকৃত অবস্থান সম্পর্কে যুক্তরাষ্ট্রের কাছে কোনো সঠিক তথ্য নেই। মার্কিন কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থার (সিআইএ) পরিচালক লিওন প্যানেটা গতকাল রোববার স্বীকার করেন, প্রায় ১০ বছর আগে বিন লাদেনের অবস্থান সম্পর্কে তাঁদের কাছে নিশ্চিত তথ্য ছিল। তবে পাকিস্তানের উপজাতি অধ্যুষিত জটিল জনারণ্যের গভীরে বিন লাদেন আত্মগোপন করে আছেন বলে তাঁদের ধারণা। লিওন প্যানেটা গতকাল এবিসি টেলিভিশনকে দেওয়া এক সাক্ষাত্কারে এসব তথ্য জানান।
২০০১ সালের ১১ সেপ্টেম্বর যুক্তরাষ্ট্রের কয়েকটি শীর্ষ স্থাপনার ওপর বিধ্বংসী হামলা চালানোর জন্য ওসামা বিন লাদেনকে দায়ী করা হয়। মার্কিন গোয়েন্দাপ্রধান তাঁর সাক্ষাৎকারে বলেন, ২০০০ সালের পর বিন লাদেনের সঠিক অবস্থান নিশ্চিত করা যায়নি।
বিন লাদেনসহ আল-কায়েদা জঙ্গিদের আশ্রয় দেওয়ার জন্য ২০০১ সালে আফগানিস্তানে হামলা চালায় যুক্তরাষ্ট্র। যুক্তরাষ্ট্রের নেতৃত্বে পশ্চিমা বহুজাতিক বাহিনী আফগানিস্তানে আল-কায়েদা-বান্ধব তালেবান সরকারকে উৎখাত করে। সে দেশে বহুজাতিক হামলার শুরুতেই বিন লাদেন তাঁর অনুসারীদের নিয়ে সরে যেতে সক্ষম হন বলে মনে করা হয়। তৎকালীন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জর্জ বুশ প্রকাশ্যে ওসামা বিন লাদেনকে জীবিত বা মৃত অবস্থায় ধরে আনার ঘোষণা দেন। টানা নয় বছরব্যাপী রক্তপাতের পরও এখনো বিন লাদেনকে তাড়া করে চলেছে মার্কিন বাহিনী। জর্জ বুশের বিদায়ের পর বর্তমান প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামাও বিন লাদেনকে তাড়া করার মার্কিন প্রয়াস অব্যাহত রেখেছেন।
ওসামা বিন লাদেনকে হত্যার জন্য আফগান-পাকিস্তান সীমান্তের উপজাতি অধ্যুষিত অঞ্চলে বহুবার মার্কিন বোমা হামলা চালানো হয়েছে। লিওন প্যানেটা বলেন, আল-কায়েদার অবস্থান এখন অতীতের যেকোনো সময়ের চেয়ে দুর্বল। তবে ওসামা বিন লাদেনের অবস্থান সম্পর্কে তাঁদের কাছে কোনো নিশ্চিত তথ্য নেই বলে তিনি জানান।
সিআইএ প্রধান তাঁর সাক্ষাত্কারে বলেন, জঙ্গিগোষ্ঠীগুলো ক্রমাগত যুক্তরাষ্ট্রে হামলা চালানোর চেষ্টা চালিয়ে যাবে। তিনি বলেন, ইতিমধ্যে তালেবান ও আল-কায়েদা নেতাদের অর্ধেককেই নির্মূল করা সম্ভব হয়েছে। তিনি আরও বলেন, আফগানিস্তানে এখন মাত্র ৫০ থেকে ১০০ জন আল-কায়েদা সদস্য সক্রিয় আছে। এদের নির্মূল করে সব ধরনের সন্ত্রাসী তৎপরতা বন্ধ করার লক্ষ্যে যুক্তরাষ্ট্র তার প্রচেষ্টা অব্যাহত রাখবে বলে তিনি সাক্ষাৎকারে বলেন।
লিওন প্যানেটা বলেন, আফগানিস্তানে খুব শিগগির কোনো রাজনৈতিক সমঝোতা হওয়ার লক্ষণ নেই। তিনি মনে করেন, আফগানিস্তানে তালেবান সমর্থকদের আল-কায়েদার সঙ্গে সংশ্লিষ্টতা ত্যাগ করতে হবে। আফগান সমাজের অংশ হিসেবে জঙ্গিবাদ পরিত্যাগ করলেই তাদের রাজনৈতিক সমঝোতার প্রতি ইচ্ছুক বলে মনে করা হবে।
সিআইএ প্রধান আরও বলেন, আফগান পরিস্থিতি জটিল। তবে ওই পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ ও উন্নয়নে যুক্তরাষ্ট্র সফল হচ্ছে বলে তিনি দাবি করেন।

পাতাটি ৩০২ বার প্রদর্শিত হয়েছে।

সংগ্রহকারী:

 মন্তব্য করতে লগিন করুন