logo

   

বিস্তারিত সংবাদ

News Photo হাইসাওয়া প্রকল্পের কাজের টেন্ডারে ব্যাপক অনিয়ম
প্রকাশ্য লটারির মাধ্যমে ঠিকাদার নির্বাচনের দাবি : রাজশাহীর পবা উপজেলার হড়গ্রাম ইউপি’র হাইসাওয়া প্রকল্পের টিউবওয়েল ও টয়লেট তৈরি কাজের টেন্ডারে ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে রাজশাহী প্রেসক্লাবে আয়োজিত এক জরুরি সংবাদ সম্মেলনে এ অভিযোগ করেন ঠিকাদাররা। তারা বলেন, ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান অনিয়মের মাধ্যমে তার মনোনীত ২জন ঠিকাদারকে তিনটি কাজ প্রদান করেছেন। ওই কাজের প্রকাশ্য লটারির মাধ্যমে ঠিকাদার নির্বাচনের দাবি জানানো হয়। একই সাথে এ অনিয়মের সাথে জড়িত চেয়ারম্যানের শাসি- দাবি করেন বিক্ষুব্ধ ঠিকাদাররা।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে বলা হয়, গত ২৬ এপ্রিল রাজশাহীর পবা উপজেলার হড়গ্রাম ইউপি’র হাইসাওয়া প্রকল্পের তিনটি গ্রুপের টিউবওয়েল ও টয়লেট তৈরি কাজের দরপত্র আহ্বান করা হয়। এ দরপত্রের সিডিউল জমা দেয়ার শেষ তারিখ ছিলো গত ১২ মে। কিন' ইউপি চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ নিজের লোকদের কাজ দেয়ার জন্য ১৯ মে পর্যন- দরপত্র জমা দেয়ার সময় বৃদ্ধি করেন। গত ২০ মে ওই টেন্ডার খোলার কথা ছিলো। ওইদিন ঠিকাদাররা যথাসময়ে হড়গ্রাম ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয়ে উপসি'ত হলে চেয়ারম্যান তাদের জানান, অনিবার্য কারণে টেন্ডারের লটারি স'গিত করা হয়েছে। লটারির পরবর্তী তারিখ ঠিকাদারদের পত্রের মাধ্যমে জানানো হবে। এছাড়া পত্রিকায় বিজ্ঞাপনও দেয়ার কথাও বলেন তিনি।
কিন' ঠিকাদারদের পত্র প্রেরণ করে কিংবা পত্রিকায় বিজ্ঞাপন না দিয়ে চেয়ারম্যান মনোনীত দুই ঠিকাদারকে সরকারী ক্রয় আইন লংঘন করে তিনটি কাজ দেয়া হয়। বিষয়টি জানাজানি হলে ঠিকাদারদের মধ্যে ব্যাপক ক্ষোভের সৃষ্টি হয়। তারা ইউনিয়ন পরিষদের সচিব গোলাম সাকলাইনকে এ ব্যাপারে জিজ্ঞাসাবাদ করলে তিনি অনিয়মের কথা স্বীকার করেন। তিনি জানান এর সাথে চেয়ারম্যান জড়িত। পরবর্তীতে দেড়শ’ টাকার স্ট্যাম্পে লিখিতভাবে চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে স্বীকারোক্তি দেন ওই সচিব।

সংবাদ সম্মেলন থেকে লটারির মাধ্যমে এই দরপত্রের ঠিকাদার নির্বাচনের দাবি জানানো হয়। একই সাথে এ ঘটনায় জড়িত ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে ব্যবস'া গ্রহণের দাবি জানানো হয়েছে। এ ব্যাপারে স'ানীয় সরকার মন্ত্রী ও হাইসাওয়া প্রকল্পের পরিচালকের আশু হস-ক্ষেপ কামনা করা হয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে হাইসাওয়া প্রকল্পের ঠিকাদারদের পক্ষে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন মজিবর রহমান। এ সময় অন্যান্যের মধ্যে ঠিকাদার জিয়াউল হাসান, বেলাল হোসেন, হাসান আলী ও আব্দুর রহিমসহ অর্ধশত ঠিকাদার উপসি'ত ছিলেন।


সাইদুর রহমান
১০ জুন ২০১০ রাজশাহী
মোবা: ০১৭১১৩০১৬১৩

পাতাটি ২৫৪ বার প্রদর্শিত হয়েছে।

সংগ্রহকারী:

 মন্তব্য করতে লগিন করুন