logo

   

বিস্তারিত সংবাদ

News Photo আ’লীগে নিস্ক্রীয়তা কাটছে না
আ’লীগের রাজনীতিতে নিস্ক্রীতা কাটছে না বরং দিন দিন বাড়ছে অপ্রিয় হলেও সত্য আ’লীগের রাজনীতিতে প্রায় একা হয়ে পড়ছেন সাংসদ ওমর ফারুক চৌধূরী। স'ানীয় আ’লীগের সিনিয়র নেতাকর্মীদের অধিকাংশ তাকে ত্যাগ করেছেন, পাশাপাশি এলাকার সাধারণ নেতাকর্মীদের একটি বড় অংশও মূখ ফিরিয়ে নিয়েছে। সেই সঙ্গে চরম সংকটে পড়েছে তার রাজনৈতিক ক্যারিয়ার। ফলে স'ানীয় আ’লীগে তার প্রায় এক দশকের আধিপত্য হুমকির মূখে। সবকিছু মিলে তিনি চরম বে-কায়দায় পড়েছেন, জেলা আ’লীগে চলছে তার বিরুদ্ধে জোর লবিং।

ফলে জেলা আ’লীগে তার নেতৃত্ব টিকিয়ে রাখাই হয়ে পড়েছে কঠিন। স'ানীয় সাংসদ ওমর ফারুক চৌধূরীর সঙ্গে আ’লীগের নেতাকর্মী ও সমর্থকদের দুরুত্ব ক্রমেই বাড়ছে। টিআর, কাবিখা, প্রতিবন্ধী, ওএমএস ডিলার নিয়োগ, গভীর নলকুপ অপারেটার নিয়োগ ও বয়স্ক ভাতাসহ নানা কারণে আ’লীগের নেতাকর্মীদের মাঝে কোন্দল বাড়ছে।

সাংগঠানিক কাজে তৎপর না হলেও ব্যক্তিস্বার্থে একে অপরের বিরুদ্ধে বিষোদগার ও হুমকি-ধামকি দিচ্ছেন। পাশাপাশি নানা কারণে স'ানীয় সাংসদ ওমর ফারুক চৌধূরীর সঙ্গে নেতাকর্মী ও সমর্থকদের দুরুত্ব ক্রমেই বাড়ছে। প্রায় ১০ বছরেরও বেশি সময় স'ানীয় আ’লীগের রাজনীতি নিয়ন্ত্রণ করেছেন সাংসদ ওমর ফারুক চৌধূরী। কিন- তার রাজনৈতিক ক্যারিয়ার এখন হুমকির মূখে পড়েছে একাধিক সুত্র নিশ্চিত করেছে।

স'ানীয় সুত্রে জানা গেছে, সাংসদ ওমর ফারুক চৌধূরী বলে ছিলেন দলীয়
নেতাকর্মীদের সঙ্গে সমন্বয় করে টিআর, কাবিখা প্রকল্প বন্টন করা হবে। কিন- পরবর্তিতে তিনি সে কথা রাখতে পারেননি। এককভাবে টিআর কাবিখা প্রকল্প বন্টন ও বরাদ্দ দিয়েছেন। এছাড়াও সমন্বয় ছাড়াই বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে তার পছন্দের সভাপতি মনোনয়োন দেন। এতে উপজেলা আ’লীগের অধিকাংশ নেতাকর্মী ক্ষুদ্ধ হন। একারনে অধিকাংশ নেতাকর্মী সাংসদের কোন অনুষ্ঠানে উপসি'ত হয়না। সব মিলিয়ে তানোর আ’লীগের নিস্ক্রীয়তা কাটছে না। দলীয় কোন্দল ও অন-দ্বন্দ্বের কারণে অধিকাংশ নেতাকর্মীর মাঝে দেখা দিয়েছে চরম মতবিরোধ। ফলে স'ানীয় সাংসদের সঙ্গে নেতাকর্মীদের দুরুত্ব ক্রমেই বাড়ছে।

জানা গেছে, আ’লীগ বিরোধী দলের সরকার বিরোধী প্রচার ও সাম্ভব্য আন্দোলন মোকাবেলায় সংগঠনকে শক্তিশালী ও গতিশীল করতে সুনিদ্রিষ্ট লক্ষ্য ও পরিকল্পনা নিয়ে সক্রীয় হচ্ছে আ’লীগ। কেন্দ্রীয় বর্ধিত সভার আলোকে এসব লক্ষ্য ও পরিকল্পনা নেয়া হয়েছে। মন্ত্রী ও সাংসদদের সঙ্গে তৃণমুল পর্যায়ে নেতাকর্মীদের দুরুত্ব কমানো, জেলা-উপজেলায় বর্ধিত সভা করে দলীয় সমস্যা চিহ্নিত করা, কোন্দল মেটানো, মাঠ পর্যায়ে সরকারের সাফল্য প্রচার করে বিরোধী দলের অপপ্রচারের জবাব দেওয়া, চাঁদাবাজী ও টেন্ডারবাজী থেকে নেতা-কর্মীদের নিয়ন্ত্রণ এবং সদস্য সংগ্রহ অভিযান জোরদার করার লক্ষ্য নিয়ে বেশ কিছু সাংগঠানিক পরিকল্পনা নেয়া হয়েছে।

কিন- তানোরে সাংসদের সঙ্গে অধিকাংশ নেতাকর্মীর সম্পর্কের অবনতি ও দুরুত্বের সৃষ্টি হওয়ায় এসব পরিকল্পনা ভেসে- যেতে বসেছে। এব্যাপারে সাংসদ ওমর ফারুক চৌধূরীরর সঙ্গে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করেও মুঠোফোন বন্ধ থাকায় তা সম্ভব হয়নি। এ ব্যাপারে উপজেলা আ’লীগ সভাপতি গোলাম রাব্বানী কোন মন-ব্য করেন নি।

পাতাটি ৩০১ বার প্রদর্শিত হয়েছে।

সংগ্রহকারী:

 মন্তব্য করতে লগিন করুন