logo

   

বিস্তারিত সংবাদ

News Photo ছাত্রমৈত্রীর নেতাকে হত্যার কারনে ছাত্রলীগের চার কর্মী পাঁচ দিনের রিমান্ডে

বাংলাদেশ ছাত্রমৈত্রীর রাজশাহী পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট শাখার সহসভাপতি রেজওয়ানুল ইসলাম ওরফে সানি হত্যা মামলায় গ্রেপ্তার ছাত্রলীগের চার কর্মীকে গতকাল রোববার পাঁচ দিনের রিমান্ডে নেওয়া হয়েছে।

যাঁদের রিমান্ডে নেওয়া হয়েছে তাঁরা হলেন পলিটেকনিক শাখা ছাত্রলীগের কর্মী জাহিদুল ইসলাম, শরিফুল ইসলাম, সদস্য নাহিদ সারোয়ার ও নাজুমল হুদা।

ওই হামলায় আহত পলিটেকনিক শাখা ছাত্রমৈত্রীর সভাপতি মোতালেব হোসেন ও অপর সহসভাপতি শেরাফত হোসেনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। ঢাকায় মেট্রোপলিটন হাসপাতালে চিকিত্সাধীন শেরাফত হোসেনের মাথায় তিন দফা অস্ত্রোপচারের পরও গতকাল রাত পর্যন্ত তাঁর জ্ঞান ফেরেনি। মোতালেবকে আজ সোমবার রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল থেকে ঢাকার পঙ্গু হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হবে বলে জানা গেছে।

আদালত সূত্রে জানা যায়, চার আসামির উপস্থিতিতে গতকাল দুপুরে রাজশাহী মহানগর হাকিমের আদালতে রিমান্ড আবেদনের ওপর শুনানি হয়। শুনানি শেষে হাকিম আমিরুল ইসলাম পাঁঁচ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। গতকাল বিকেলে ওই চার আসামিকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য বোয়ালিয়া মডেল থানায় নেওয়া হয়। উল্লেখ্য, নিহত রেজওয়ানুলের বাবা মনোয়ারুল ইসলামের দায়ের করা মামলায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে বোয়ালিয়া থানার পুলিশ ৮ জানুয়ারি ওই চারজনকে সাত দিনের রিমান্ডে নেওয়ার আবেদন করে।

এই মামলার অপর ছয় আসামি পলাতক। তাঁরা হলেন: পলিটেকনিক শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি নিজাম উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসেন, কর্মী রহিম উদ্দিন, রকুন উদ্দিন, আবদুল মতিন ও মাসুম।

অপর দিকে, পুলিশের ওপর হামলার অভিযোগে কনস্টেবল শহিদুল ইসলাম বাদী হয়ে ৭ জানুয়ারি একটি মামলা করেন। এই মামলার আসামিরা হলেন: পলিটেকনিক শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি নিজাম উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসেন ও কর্মী নাহিদ সারোয়ার। এ মামলায় গ্রেপ্তার নাহিদ সারোয়ারকে তিন দিনের রিমান্ডে নেওয়ার জন্য গতকাল একই আদালতে আবেদন করা হয়। আদালত আবেদন নামঞ্জুর করেন।

রেজওয়ানুল হত্যাকাণ্ডে জড়িত ব্যক্তিদের গ্রেপ্তারের দাবিতে ছাত্রমৈত্রী গতকাল সকালে নগরের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোতে কালো ব্যাজ ধারণ ও বিক্ষোভ মিছিল করে। এ ছাড়া মহানগর ছাত্রমৈত্রীর সভাপতি মতিউর রহমানের নেতৃত্বে পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটে বিক্ষোভ মিছিল করা হয়। মিছিলের পর সমাবেশে নেতারা অবিলম্বে পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি নিজাম উদ্দিনসহ ঘটনায় জড়িত ব্যক্তিদের গ্রেপ্তারের দাবি জানান।

৭ জানুয়ারি রাজশাহী পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটে ছাত্রলীগের হামলায় গুরুতর আহত হন পলিটেকনিক শাখা ছাত্রমৈত্রীর সভাপতি মোতালেব হোসেন, সহসভাপতি রেজওয়ানুল ইসলাম চৌধুরী ওরফে সানি ও শেরাফত আলী। তাঁদের মধ্যে রেজওয়ানুল রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিত্সাধীন অবস্থায় মারা যান। এ ঘটনায় ইনস্টিটিউট অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা করা হয়।

পাতাটি ৩৯১ বার প্রদর্শিত হয়েছে।

সংগ্রহকারী:

 মন্তব্য করতে লগিন করুন