logo

   

বিস্তারিত সংবাদ

News Photo পদ্মার ভাঙনে ঝুঁকিতে রাজশাহী শহর রক্ষা বাঁধ
রাজশাহীর পদ্মায় পানি বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে নগরীর পশ্চিমে সোনাইকান্দি এলাকা, নবগঙ্গা ৫ নং আই বাঁধ, বুলনপুর ৩ নং আই বাঁধ ও পদ্মার ওপারে চর তারানগর, চর খিদিরপুর, খানপুর বিওপি এলাকা জুড়ে ব্যাপক ভাঙন চলছে। এতে ঘর-বাড়ি ও ফসলী জমি হারানোর ভয়ে এলাকাবাসী আতঙ্কিত হয়ে পড়েছেন। এছাড়া ঝুঁকির মধ্যে পড়েছে রাজশাহী শহর রক্ষা বাঁধও।

এরই মধ্যে রাজশাহী-৩ আসনের সংসদ সদস্য মেরাজ উদ্দিন মোল্লা, পবা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রাজ্জাকুল ইসলামসহ প্রশাসনের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা ভাঙন কবলিত এলাকা পরিদর্শন করেছেন।

বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ড রাজশাহীর কন্ট্রোল রুম জানায়, সোমববার দুপুরে রাজশাহীতে পদ্মার উচ্চতা ছিল ১৭.২০ মিটার। পূর্ববর্তী ৪৮ ঘন্টায় পানি বেড়েছে ২৯ সেন্টিমিটার। গত ১ জুন রাজশাহীতে পদ্মার পানির উচ্চতা ছিল ৯.৫ মিটার। এরপর পানি বাড়তে থাকে।

সোয়া একমাসে পানি বেড়েছে প্রায় ৭ মিটার। রাজশাহীতে পদ্মার বিপদসীমা ১৮.৫০ মিটার। গত ৯ বছর (২০০৪-২০১২) রাজশাহীতে পদ্মা বিপদসীমা অতিক্রম করেনি।

সর্বশেষ গত ২০০৩ সালে একবার রাজশাহীতে পদ্মা বিপদসীমা অতিক্রম করেছিল। ওই বছরের ১৯ সেপ্টেম্বর পদ্মার সর্বোচ্চ উচ্চতা ছিল ১৮.৮৫ মিটার। তবে এবার বেশ আগে-ভাগেই পদ্মায় পানি হু-হু করে বাড়ছে। এতে উদ্বিগ্ন হয়ে উঠেছেন পদ্মা পাড়ের মানুষ।

পদ্মার ভাঙন কবলিত পবার সোনাইকান্দি এলাকায় গিয়ে দেখা গেছে পদ্মায় পানি বাড়ার সঙ্গে ভাঙন শুরু হয়েছে। সোমবারও নদীতে প্রচণ্ড স্রোত ও ভাঙন দেখা গেছে।

বেড়পাড়া থেকে সোনাইকান্দি হয়ে নবগঙ্গা পর্যন্ত প্রায় ৩ কিলোমিটার এলাকা জুড়ে ভাঙন চলছে। এই এলাকায় ব্লক দিয়ে পিচিং না করায় ভাঙন চলছে। এছাড়া পদ্মার অপর পাড়ে পবার হরিয়ান ইউনিয়নের চর তারানগর, চর খিদিরপুর ও খানপুর বিওপি এলাকায় চলছে ব্যাপক ভাঙন।

এর ফলে খানপুর বিওপি, নবগঙ্গা ৫নং আই বাঁধ ও বুলনপুর ৩নং আই বাঁধ চরম হুমকিতে পড়েছে। বিওপির ওপারের চরের অবশিষ্ট জায়গা ভেঙে গেলে সেখানে বাংলাদেশের কোনো জায়গা থাকবে না। এই ভাঙনের মধ্যে শত শত বিঘা জমির আবাদ-ফসল ও বিভিন্ন ফলের বাগান রয়েছে।

আরও কয়েক দিন এই ভাঙন অব্যাহত থাকলে এবং আই বাঁধ দুইটি রক্ষা করা না গেলে রাজশাহী শহর রক্ষা বাঁধও হুমকিতে পড়বে।

এদিকে, এরই মধ্যে রাজশাহী-৩ আসনের সংসদ সদস্য মেরাজ উদ্দিন মোল্লা, পবা উপজেলা নির্বাহী অফিসার রাজ্জাকুল ইসলাম, রাজশাহী পানি উন্নয়ন বোর্ডের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী শাহাবুদ্দিন, নির্বাহী প্রকৌশলী হারুন-অর-রশিদসহ আরও অনেকে ভাঙন কবলিত এলাকা পরিদর্শন করেছেন ।

পরিদর্শনকালে পাউবো কর্মকর্তারা সকলকে আশ্বস্ত করে বলেন, তারা ভাঙন এলাকার খানপুর বিওপি, নবগঙ্গা ৫নং আই বাঁধ ও বুলনপুর ৩নং আই বাঁধকে বেশি গুরুত্ব দিচ্ছেন। এগুলো রক্ষার জন্য ঢাকাকে জানানো হবে।

এছাড়া নবগঙ্গা থেকে বেড়পাড়া পর্যন্ত যে ৩ কিলোমিটার জুড়ে ভাঙন সেখানে ব্লক পিচিংয়ের জন্য ঢাকাকে অবগত করা হবে বলে জানান তিনি।

পাতাটি ২২৪ বার প্রদর্শিত হয়েছে।

সংগ্রহকারী:

 মন্তব্য করতে লগিন করুন