logo

   

বিস্তারিত সংবাদ

News Photo মওসুম প্রায় শেষ পর্যায়ে নগরীতে আমের বাজার চড়া
মওসুমের শেষ পর্যায়ে এসে আমের বাজার এখন বেশ চড়া। বিভিন্ন আমের কেজিতে ২০ থেকে ৫০ টাকা পর্যন্ত বেড়েছে দাম। ঢাকা, চট্রগ্রাম, সিলেটসহ দেশের বিভিন্ন স’ানে আম পাঠানো বৃদ্ধি এবং আসন্ন রমজানকে সামনে রেখে আমের দাম বেড়ে গেছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।
গতকাল শুক্রবার নগরীর সাহেব বাজারে আমের বিভিন্ন আড়ৎ ঘুরে দেখা গেছে খিরসাপাত ১০০ টাকা, ল্যাংড়া কাঁচা ৮৫ থেকে ৯০ টাকা, ল্যাংড়া পাকা ৭০ থেকে ৮০ টাকা, সুরমা ফজলি ৪৫ থেকে ৫০ টাকা, বড় ফজলী ৩৫ থেকে ৪০ টাকা, আম্রপলি ৬৫ থেকে ৭০ টাকা কেজি দরে বিক্রি করা হচ্ছে। খিরসাপাত ও ল্যাংড়া আম প্রায় শেষের পথে। গোপালভোগ শেষ হয়েছে অনেক আগেই।
ব্যবসায়ীরা বলছেন, আমের বাজার প্রায় শেষেরদিকে। প্রতিদিন কয়ে-কশ’ টন আম বিভিন্ন পরিবহনে দেশের বিভিন্ন স’ানে চলে যাচ্ছে। একারনে আমের দাম বেড়ে গেছে। তারা আরো বলছেন, আগামি সপ্তাহেই রোজা। ইফতারের অন্যতম সামগ্রী হচ্ছে আম। এবার ২০/২৫ রোজা পর্যন্ত এসব আম থাকবে বাজারে। ঈদের পর সর্বশেষ আম হিসেবে বাজারে আসবে আশ্বিনা।
রাজশাহী কৃষি সমপ্রসারণ অধিদপ্তর ও রাজশাহী ফল গবেষনা কেন্দ্রের তথ্য অনুসারে চলতি ২০১২-২০১৩ মওসুমে রাজশাহী জেলায় আম উৎপাদনের লক্ষমাত্রা ধরা হয়েছে ১ লাখ ১০ হাজার ৪৮৮ মেট্রিক টন। গত ২০১১-২০১২ মওসুমে জেলায় ৮ হাজার ৯৮৬ হেক্টর আবাদি জমিতে গাছ ছিল ১০ লাখ ৬ হাজার ৮৮১ টি এবং আম উৎপাদন হয় ১ লাখ ১০ হাজার ৪৮৮ মেট্রিক টন। গতবারের এই উৎপাদনই এবারের লক্ষমাত্রা ধরা হয়েছে ।
রাজশাহী ফল গবেষণা কেন্দ্রের উর্ধ্বতন বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ডঃ আলীম উদ্দিন জানান, এবার আমের বাম্পার উৎপাদন না হলেও আশা-নুরূপ উৎপাদন হয়েছে। তবে প্রকৃত হিসেব পেতে আরো কিছুদিন সময় লাগবে বলে তিনি জানান।

পাতাটি ১৮১ বার প্রদর্শিত হয়েছে।

সংগ্রহকারী:

 মন্তব্য করতে লগিন করুন