logo

   

বিস্তারিত সংবাদ

News Photo শৈত্যপ্রবাহে বির্পযস্ত উত্তরাঞ্চলের জীবনযাত্রা


প্রচণ্ড শৈত্যপ্রবাহে রংপুর, দিনাজপুর ও বগুড়াসহ সমগ্র উত্তরাঞ্চলের স্বাভাবিক জীবনযাত্রা বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে। শীতবস্ত্রের অভাব প্রকট আকার ধারন করেছে। এবারের শীতে রংপুরে মারা গেছে ৪ শিশু। রংপুরে তাপমাত্রা ৮ দশমিক ৮ ডিগ্রী সেলসিয়াসে নেমে আসে

যা ছিল রংপুরের সর্ব নিম্ন তাপমাত্রা। তিস্তার চরের কাউনিয়া, গঙ্গাচড়ায় তীব্র শীতের কারণে শীত বস্ত্রের অভাবে মানবেতর জীবন যাপন করছে অনেকেই। অনেকেই খর-কুটো জ্বালিয়ে রাতে ও দিনে শীতের তীব্রতা থেকে রক্ষা পাওয়ার চেষ্টা করছে। শহরে ভাসমান মানুষ যারা ফুটপাত,

রেল স্টেশন ও বাস টার্মিনাল এলাকায় আশ্রয় নিয়ে থাকে তারাও দারুণ কষ্টে পড়েছে। বগুড়ায় প্রচন্ড শীতে জনজীবন বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে। জনগণ বিশেষ করে রেলস্টেশন, টার্নিমালসহ বিভিন্ন স্থানে আশ্রয় নেয়া ছিন্নমূলদের দূর্ভোগ চরম সীমায় পৌঁছেছে।

সরকারি বা বেসরকারিভাবে শীতার্তদের জন্য তেমন কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়নি। বর্তমানে বগুড়ায় মাঝারি শৈত্য প্রবাহ চলছে। ২৪ ডিসেম্বর ৮.৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে। দিনাজপুরে শৈত্য প্রবাহের সাথে সাথে শীতের তীব্রতা বৃদ্ধি পাচ্ছে। গত ৩ দিন যাবৎ তাপমাত্রা প্রায় ১০ ডিগ্রি সেলসিয়াসে উঠানামা করছে। অন্যান্যবারের মত

এইসব এলাকাতে সরকারি ও বেসরকারি পর্যায়ে শীত বস্ত্র বিতরন করতে দেখা যায়নি। সরকারি তরফ থেকে বরাদ্দকৃত শীত বস্ত্র প্রয়োজনের শতকরা ত্রিশ ভাগও পূরণ করতে পারছেনা।

পাতাটি ৩৯০ বার প্রদর্শিত হয়েছে।

সংগ্রহকারী:

 মন্তব্য করতে লগিন করুন