logo

   

বিস্তারিত সংবাদ

News Photo পশ্চিমবঙ্গে প্রচণ্ড দাবদাহ, দুই দিনে ৮৮ জনের মৃত্যু
ভারতের পশ্চিমবঙ্গে প্রচণ্ড দাবদাহে অসুস্থ হয়ে গতকাল মঙ্গলবার ৬৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে গত দুই দিনে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৮৮ জনে। দুর্বিষহ গরমে গত কয়েক দশকে এই রাজ্যে এবারই সবচেয়ে বেশি মানুষ মারা গেছে বলে ধারণা হচ্ছে। টাইমস অব ইন্ডিয়ার খবরে এ তথ্য জানানো হয়।
গতকাল মারা যাওয়া ৬৭ জনের মধ্যে কলকাতা শহরের সাতজন, পশ্চিমবঙ্গের শিল্পশহর আসানসোল ও দুর্গাপুরের ৩১ জন, কাটোয়ার তিনজন, বাঁকুড়া-পুরুলিয়া-নদীয়ার সাতজন, পশ্চিম মেদিনীপুরের নয়জন, হাওড়ার চারজন, হুগলির দুজন রয়েছে।
গতকাল রাজধানী কলকাতার তাপমাত্রা ছিল ৪০ ডিগ্রি সেলসিয়াস, যা স্বাভাবিকের তুলনায় ৫ ডিগ্রি বেশি। সবচেয়ে বেশি তাপমাত্রা ছিল আসানসোলে। গতকাল ওই জেলাটিতে ৪৬ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস থাকায় ওই এলাকায় সবচেয়ে বেশি মানুষ মারা গেছে। এ ছাড়া বাঁকুড়া ও দুর্গাপুরে ৪৬ ডিগ্রি, খড়গপুরে ৪৫ ডিগ্রি, পুরুলিয়ায় ৪৩ ডিগ্রি, বীরভূমে ৪৩ ডিগ্রি, হাওড়ায় ৪০ ডিগ্রি ও দমদমে ছিল ৩৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা ছিল।
আবহাওয়া দপ্তর থেকে জানানো হয়, মধ্য জুন পর্যন্ত পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের তাপমাত্রা আরও বাড়তে পারে। তীব্র গরমের কারণে ১৭ জুলাই পর্যন্ত গ্রীষ্মকালীন ছুটি বাড়িয়েছে পশ্চিমবঙ্গ সরকার। আজ বুধবার গ্রীষ্মের ছুটির পর স্কুল খোলার কথা ছিল।
এ ব্যাপারে গতকাল মন্ত্রিসভার বৈঠক ডাকেন করেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বৈঠকে তিনি দাবদাহের প্রভাবে সৃষ্ট বিরূপ পরিস্থিতি মোকাবিলার আহ্বান জানিয়ে বলেন, ‘নিজ দপ্তরে কোনো কাজ না থাকলে আপনারা নিজ নিজ জেলায় গিয়ে গরমে অতিষ্ঠ হওয়া মানুষের পাশে গিয়ে দাঁড়ান।’

পাতাটি ৩০৩ বার প্রদর্শিত হয়েছে।

সংগ্রহকারী:

 মন্তব্য করতে লগিন করুন