logo

   

বিস্তারিত সংবাদ

News Photo রাজশাহীতে ৪০ হাজার বিঘায় এবার বোরো আবাদ হয়নি
রাজশাহীতে এবার ৭৮ হাজার ৩৩০ হেক্টর জমিতে বোরো আবাদ হয়েছে। যা গত বারের চেয়ে প্রায় ৪০ হাজার বিঘা কম। আবহাওয়া ও বিদ্যুৎ পরিসি’তি অনুকূলে থাকলে ভাল ফলনের আশা করছেন সংশ্লিষ্টরা।বোরো চাষী ও কৃষিবিদদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, গত বছর রাজশাহীতে ৮৪ হাজার হেক্টর জমিতে বোরো আবাদ হয়েছিল। বিদ্যুৎ সমস্যার কারণে গভীর নলকূপগুলো থেকে ঠিকমত পানি না পাওয়ায় গত বছর চাষীরা চরম বেকায়দায় পড়ে। তাই এবার বোরো মৌসুম শুরুর আগেই কৃষি সমপ্রসারণ বিভাগ ও বিএমডিএ চাষীদেরকে বোরো আবাদ কমিয়ে সেচ কম লাগে এমন ফসলের আবাদ করার জন্য পরামর্শ দেয়। চাষীরাও আবাদ নষ্ট হবার কথা চিন্তা করে বোরো চাষ কমিয়ে দেয়। চাষীরা বলছেন, এবার বোরো আবাদ অনুকূল আবহাওয়া এবং বিদ্যুৎ সমস্যা না থাকায় প্রয়োজনমত পানি পাওয়ায় এখন পর্যন্ত ভাল আছে। শেষ পর্যন্ত এ অবস’া থাকলে ভাল ফলন আশা করছেন চাষীরা।

পবার বিলনেপালপাড়ার বোরো চাষী নূরুল আমিন এবার ৮ বিঘা জমিতে বোরো আবাদ করেছেন। গত বছরের চেয়ে ৩ বিঘা কম আবাদ করেছেন তিনি। তার এলাকার অনেকেই এবার আবাদ কমিয়ে দিয়েছেন ঠিকমত পানি না পাবার আশংকায়। ফলে এখন পর্যন্ত অনুকূল আবহাওয়া ও ঠিকমত পানি সরবরাহ পাওয়ায় তার এলাকার সকলের বোরো আবাদ ভাল আছে। নওহাটার শ্রীপুর গ্রামের চাষী একাব্বোর আলী জানান, তিনি ৪ বিঘায় বোরো আবাদ করেছেন। আবাদের পরিমাণ কম হওয়ায় পানির তেমন সমস্যা হচ্ছে না। তবে তারসহ অনেকের জমিতেই পাতায় মরিচার মত (ক্ষ্যারা লাগা) রোগ দেখা দিয়েছে। যা রোধ করতে তারা পারছেন না কোন বালাইনাশক দিয়ে।
এ ব্যাপারে কৃষিবিদ আহমেদ হোসেন ইকবাল বলেন, অনুকূল আবহাওয়া ও সেচের পরিসি’তি ভাল থাকায় এবার বোরো আবাদ ভাল আছে। পাটাশ, জিংক বা জিরসাম এর অভাবে পাতামরা বা মরিচা লাগার মত হতে পারে। তাছাড়া পাতা মাছিও আক্রমণ করে। বোরো ক্ষেত্রে এ ধরনের সমস্যা দেখা দিলে তিনি অতিসত্বর কৃষি কর্মকর্তাদের সাথে পরামর্শ করে ব্যবস’া গ্রহণের কথা বলেন।

রাজশাহী কৃষি সমপ্রসারণ বিভাগ জানায়, এ বছর রাজশাহীতে বোরো চাষের লক্ষমাত্রা ধরা হয়েছিল ৭৯ হাজার ৭০০ হেক্টর জমিতে। আবাদ হয়েছে ৭৮ হাজার ৩৩০ হেক্টর। গত বছর রাজশাহীতে বোরো আবাদ হয়েছিল ৮৪ হাজার হেক্টর জমিতে।

পাতাটি ২৮০ বার প্রদর্শিত হয়েছে।

সংগ্রহকারী:

 মন্তব্য করতে লগিন করুন