logo

   

বিস্তারিত সংবাদ

News Photo লিবিয়া থেকে ফিরেই শ্রমিকদের বিক্ষোভ
দুঃস্বপ্নের লিবিয়া থেকে গতকাল বুধবার ঢাকায় ফিরে বিমানবন্দরেই বিক্ষোভ করেছেন অর্ধশতাধিক শ্রমিক। এ সময় তাঁরা তাঁদের দুরবস্থার জন্য লিবিয়ায় বাংলাদেশ দূতাবাস ও বাংলাদেশ সরকারের বিরুদ্ধে ক্ষোভ প্রকাশ করেন। গতকাল ঢাকায় ফেরা ৫১৭ জন বাংলাদেশি বিমানবন্দরে উপস্থিত সাংবাদিক ও স্বজনদের কাছে লিবিয়ার ভয়াবহ পরিস্থিতি বর্ণনা করে বলেন, সরকারের উচিত এখনই বাংলাদেশিদের ফিরিয়ে আনা। পররাষ্ট্রসচিব মোহাম্মদ মিজারুল কায়েস বলেছেন, আন্তর্জাতিক অভিবাসন সংস্থা (আইওএম) ও সংশ্লিষ্ট কম্পানিগুলোর মাধ্যমে বাংলাদেশিরা দেশে ফিরছেন। সরকার নিজ উদ্যোগে বাংলাদেশিদের ফিরিয়ে আনার কাজ এখনো শুরু করেনি। প্রবাসীকল্যাণমন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেছেন, লিবিয়া থেকে ফিরে আসা শ্রমিকদের অগ্রাধিকার ভিত্তিতে কর্মসংস্থানের সুযোগ দিতে সরকার তাঁদের নিবন্ধনের কাজ শুরু করেছে।
গাদ্দাফিবিরোধী আন্দোলনে রক্তাক্ত লিবিয়া থেকে দেশে ফিরে যেন বন্দিদশা থেকে মুক্তির স্বাদ পেলেন পাঁচ শরও বেশি বাংলাদেশি। দেশে ফিরে তারা নিজেরা কেঁদেছেন, কাঁদিয়েছেন স্বজনদেরও। গতকাল বিকেল ৩টার দিকে যখন তাঁরা একে একে বিমানবন্দরের ক্যানোপি পয়েন্ট দিয়ে বেরিয়ে আসছিলেন, তখন তাঁদের মুখ ছিল বিষণ্ন।

মরুভূমিতে খোলা আকাশের নিচে নির্ঘুম ও বিপদসঙ্কুল অনেক রাত পার করা ব্যক্তিরা ছিলেন ক্লান্ত। বেশ কয়েকবার নাম জিজ্ঞেস করার পরও সাংবাদিকদের কাছে স্পষ্ট করে নাম বলতে পারেননি এক শ্রমিক। শেষে জোরে নিঃশ্বাস নিয়ে কাঁদতে কাঁদতে উচ্চস্বরে তিনি বলেন, 'পনর দিন ধরে পেটে খাবার নাই। বিমানে খাবার দিল কিন্তু খাওয়ার শক্তি নাই।' একই অবস্থা টাঙ্গাইলের মালিক সরকার, আনফর আলী, সালাম, সাইফুল, ইদরিস, শফিকুল ইসলাম, মাহবুব, এরশাদ, মোঃ মিরাজ, চান্দু মিয়া ও সালাউদ্দিনের।

পাতাটি ৩৫১ বার প্রদর্শিত হয়েছে।

সংগ্রহকারী:

 মন্তব্য করতে লগিন করুন