logo

   

বিস্তারিত সংবাদ

News Photo যুগান্তর আয়োজিত সংলাপে বক্তারা / রাজশাহীর উন্নয়নে যৌক্তিক দাবি আদায়ে সবাইকে একাট্রা হয়ে আন্দোলন করতে হবে
গতকাল রাতে নগরীর নানকিং দরবার হলে দৈনিক যুগান-র ও ক্যামরিয়ান স্কুল এন্ড কলেজ আয়োজিত ‘উন্নয়ন সম্ভাবনায় ১২ বছরের বাংলাদেশ: প্রসঙ্গ রাজশাহী বিভাগ’ শীর্ষক সংলাপে বক্তারা বলেছেন, সরকারের সুষ্ঠু নীতিমালার অভাবে সবদিক থেকেই রাজশাহী অঞ্চল বঞ্চিত হয়ে আসছে। দেশ স্বাধীনের ৪০ বছরেও এই বৈষম্যনীতির অবসান হয়নি। এ জন্য রাজশাহীর উন্নয়ন এবং যৌক্তিক দাবি আদায় করতে হলে দলমত নির্বিশেষে সবাইকে একাট্রা হয়ে আন্দোলন করতে হবে।
রাজশাহী সদর আসনের সংসদ সদস্য ফজলে হোসেন বাদশা বলেন, আমি সারা জীবন জনগণের পাশে থেকেই রাজশাহীবাসীর বিভিন্ন দাবি-দাওয়া আদায়ে মাঠে-ময়দানে আন্দোলন করে এসেছি। ফলে এখনো জনগণের সাথেই আছি, আজীবন থাকবো। এভাবে আমরা আর বঞ্চিত থাকতে চাই না। তাই সবাইকে রাজশাহীর বিভিন্ন সমস্যা নিয়ে আন্দোলন করতে হবে।
তিনি বলেন, আমার নির্বাচনী প্রতিশ্রুতিগুলোর অন্যতম ছিল রাজশাহীতে গ্যাস সরবরাহ। আশা করি আগামী এক বছরের মধ্যেই রাজশাহীতে গ্যাস সংযোগ নিশ্চিত হবে। এছাড়া অচিরেই সিল্ক নগরীর অতীত গৌরব ফিরে আসবে, টেক্‌্রটাইল ও জুটমিল নতুনভাবে চালু হবে। নতুন কর্মসংস’ান সৃষ্টি, বন্ধ শিল্পকারখানা চালু ও বিদেশে জনশক্তি রপ্তানিসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে কার্যকর পদক্ষেপ নিচ্ছি। ইতোমধ্যে শিক্ষার উন্নয়নে বেশ কিছু পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে। রাজশাহী কলেজে এইচএসসি ও বিভিন্ন স্কুলে ডাবল সিফট চালু করা হয়েছে। তিনি আরও বলেন, অল্পদিনের মধ্যেই ঢাকায় উন্নয়ন বঞ্চিত রাজশাহীর দেনা-পাওনা নিয়ে হিসাব নিকাশ হবে। ফলে আগামী বাজেটে এর প্রতিফলন পাওয়া যাবে। আমরা বর্তমানে সংসদে রাজশাহীর বিষয় নিয়ে যত কথা বলছি, ইতোপূর্বে আর কখনো বলা হয়নি।
যুগান-রের বিভাগীয় শহরগুলোতে সংলাপ আয়োজনের ধারাবাহিকতায় গতকাল রাজশাহীতে যুগান-রের নির্বাহী সম্পাদক সাইফুল আলমের সভাপতিত্বে সর্বশেষ সংলাপে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, জাতীয় সংসদ সদস্য ওমর ফারুক চৌধুরী, জাতীয় সংসদ সদস্য শাহরিয়ার আলম, জাতীয় সংসদ সদস্য আব্দুদ ওয়াদুদ দারা, সাবেক মেয়র ও বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব মিজানুর রহমান মিনু, সাবেক মেয়র অ্যাড. আব্দুল হাদি, দুরুল হুদা, সাবেক এমপি লুৎফুন্নেসা হোসেন, ফিরোজা বেগম, বিভাগীয় কমিশনার আব্দুল মান্নান, ভাষা সৈনিক মোশারফ হোসেন আখুঞ্জি, দৈনিক সোনালী সংবাদের সম্পাদক লিয়াকত আলী, রাজশাহী সাংবাদিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক সরদার এম. আনিছুর রহমান, রাজশাহী রক্ষা সংগ্রাম পরিষদের আহবায়ক জামাত খান, রাজশাহী চেম্বারের সাবেক সভাপতি আবু বাক্কার আলী, অধ্যক্ষ বিপ্লব হোসেন প্রমুখ। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন যুগান-রের সহ-সম্পাদক তরিক রহমান ও রাজশাহী ব্যুরো প্রধান বুলবুল চৌধুরী।
সংলাপ অনুষ্ঠানে অর্ধশত বক্তা রাজশাহীর বিভিন্ন সমস্যা ও সমসাময়িক বিভিন্ন বিষয়ে সরাসরি বক্তব্য তুলে ধরেন। সংলাপে বক্তারা- নতুন কর্মসংস’ান সৃষ্টি, বন্ধ শিল্পকারখানা চালু, বিদেশে জনশক্তি রপ্তানি ও রাজশাহীতে গ্যাস সরবরাহসহ বিভিন্ন বিষয়ে প্রশ্ন করেন।
সংলাপে বক্তারা বলেন, নতুন কর্ম-সংস’ান সৃষ্টি ও রাজশাহীর উন্নয়নে সকল রাজনৈতিক দলের নেতাদের ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে। এজন্য পরস্পরের প্রতি সহনশীল হতে হবে।
এক প্রশ্নের জবাবে সদর আসনের এমপি ফজলে হোসেন বাদশা বলেন, কিছু দিনের মধ্যেই রেশম কারখানা ও রাজশাহী টেক্‌্রটাইল মিল খুলে দেয়া হবে। এছাড়া গার্মেন্টস ফ্যাক্টরী গড়ে তোলা চেষ্টা করা হচ্ছে। ২০১১ সালের মধ্যে গ্যাস সরবরাহ হলে এখানে নতুন নতুন আরো অনেক শিল্প-কারখানা গড়ে উঠবে।
এছাড়াও ওমর ফারুক চৌধুরী এমপি ও শাহরিয়ার আলম এমপি রাজশাহীর উন্নয়নে সংসদ সদস্যদের বিভিন্ন পদক্ষেপ ও প্রচেষ্টার কথা তুলে ধরেন।
সাবেক মেয়র মিজানুর রহমান মিনু মেয়র থাকাকালীন এবং বিগত জোট সরকারের আমলে বিভিন্ন ক্ষেত্রে উন্নয়নের কথা তুলে ধরেন। সূ্ত্র:সোনালী সংবাদ

পাতাটি ৩৪৪ বার প্রদর্শিত হয়েছে।

সংগ্রহকারী:

 মন্তব্য করতে লগিন করুন