logo

   

বিস্তারিত সংবাদ

News Photo দুই এমপি ওষুধ চুরির অভিযোগ আনলেন রামেক চিকিৎসকদের বিরুদ্ধে
হাসপাতালে ওষুধ আছে, তবুও চিকিৎসক তা রোগীকে না দিয়ে কিনতে দিয়েছেন বাইরে থেকে। এমন অভিযোগ প্রমাণ হওয়ার পর রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ৩১ নম্বর ওয়ার্ডের বিভাগীয় প্রধান ডা. বিকে দাম ও কর্মরত অন্যান্য চিকিৎসককে ওষুধ চোর বলে ভৎর্সনা করেছেন সদর আসনের সংসদ সদস্য ফজলে হোসেন বাদশা ও সংসদ সদস্য ওমর ফারুক চৌধুরী।রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ৩১ নম্বর ওয়ার্ডে সড়ক দুর্ঘটনায় আহত হয়ে চিকিৎসা নিতে ভর্তি হন এক ব্যক্তি। পরে তার অপারেশনের জন্য ওই ওয়ার্ডের এক চিকিৎসক লিখে দেন বিভিন্ন ওষুধ। পরে হাসপাতালের পরিচালকের কাছে গিয়ে খোঁজ নিয়ে জানা যায়, ওই চিকিৎসক যেসব ওষুধ লিখেছেন তার সবগুলোই হাসপাতাল থেকে বিনামূল্যে সরবরাহ রয়েছে। এই অভিযোগ পেয়ে রাজশাহী সদর আসনের সংসদ সদস্য ফজলে হোসেন বাদশা ও তানোর-গোদা-গাড়ী আসনের সংসদ সদস্য ওমর ফারুক চৌধুরী গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে হাসপাতাল পরিদর্শনে যান। হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার আশরাফুল আলম সিদ্দিকীর সাথে বৈঠক করেন দুই সংসদ সদস্য। বৈঠকে হাসপাতালে ওষুধ থাকার পরও তা রোগীকে না দেওয়ায় ৩১ নম্বর ওয়ার্ডের বিভাগীয় প্রধান ডা. বিকে দামসহ কর্মরত অন্যান্য চিাকৎসককে ভৎর্সনা করে দুই সংসদ সদস্য বলেছেন, ‘হাসপাতালে ওষুধ থাকার পরও তা রোগীদের না দিয়ে আপনারা চুরি করছেন। আপনাদের নেতৃত্বেই ওষুধ চুরি করা হয় হাসপাতাল থেকে। চিকিৎসকদের ভৎর্সনা করে হাসপাতাল পরিদর্শনে যাওয়ার সময় দুপুর ১২ টার দিকে ৭ নম্বর ওয়ার্ডের সামনে খাবার পরিবেশন দেখে অসন্তোষ প্রকাশ করে ফিরে আসেন দুই সংসদ সদস্য। এর আগে হাসপাতালের অনিয়ম সম্পর্কিত তথ্যগুলো বের করতে হাসপাতালের পরিচালককে একটি তদন্ত কমিটি গঠনের নির্দেশ দেন সংসদ সদস্য ফজলে হোসেন বাদশা। সূ্ত্র:সোনালী সংবাদ

পাতাটি ২৫৩ বার প্রদর্শিত হয়েছে।

সংগ্রহকারী:

 মন্তব্য করতে লগিন করুন