logo

   

বিস্তারিত সংবাদ

News Photo অটো রিকসায় ওড়না জড়িয়ে নারীর মৃত্যু নগরীতে এক মাসে আহত অর্ধশতাধিক
রাজশাহীতে অটো রিকসার মোটরের এক্সেলে ওড়না জড়িয়ে প্রায়ই দুর্ঘটনার শিকার হচ্ছেন নারীরা। অটো রিকসায় ওড়না জড়িয়ে গতকাল সোমবার নগরীতে এমিলি খাতুন নামের এক নারীর মর্মান্তিক মৃত্যু হয়েছে। ওই নারীর মৃত্যুর এক মাস আগে নওগাঁয় অপর নারীর মৃত্যু হয়েছে একই ধরনের দুর্ঘটনায়। এছাড়া শুধু রাজশাহীতে মহানগরীতেই গত এক মাসে এধরনের দুর্ঘটনায় আহত হয়েছেন অন্তত অর্ধ শতাধিক নারী।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, গতকাল সোমবার সকালে পাবনা সদরের তেবুনিয়া গ্রামের এমিলি খাতুন মামার সঙ্গে রাজশাহী বাস টার্মিনালে এসে একটি অটো রিকসায় চড়ে নার্সিং ইন্সটিটিউটে ভর্তি ফরম তোলার জন্য যাচ্ছিলো। মানুষের সেবা করার মহান ব্রত নিয়ে অটো রিকসায় চড়ে বর্ণালীর মোড়ে যাবার পরই অটো রিকসার এক্সেলে তার ওড়না জড়িয়ে যায়। এসময় গুরুতর আহত অবস’ায় তাকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হলে চিকিৎসক মৃত বলে ঘোষণা করে। এব্যাপারে রাজপাড়া থানায় একটি ইউডি মামলা হয়েছে।
খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, দুই থেকে তিনজন যাত্রীর ব্যবহার উপযোগী করে অটো রিকসা তৈরি হলেও এর মালিকরা অতিরিক্ত সিট লাগিয়ে ৮ থেকে ৯ জন করে যাত্রী বহন করছেন। চালকের পেছনে অতিরিক্ত সিট লাগিয়ে সেখানেও তিন থেকে ৪ জন যাত্রী উঠানো হয়ে থাকে। বোরাক নামের অটো রিকসায় ওই অতিরিক্ত সিটের নিচে গাড়ীর এক্সেলে ফাঁকা থাকায় অনায়াশেই নারী যাত্রীদের ওড়না জড়িয়ে যাচ্ছে। অটো রিকসার এক্সেলে নারী যাত্রীদের ওড়না জড়িয়ে গেলেও অনেক সময় যাত্রী বা চালক কোন পক্ষই তাৎক্ষণিক বুঝতে পারছেন না। ফলে ঘটছে বড় ধরণের দুর্ঘটনা। গত এক মাসে অন্তত ৪০ নারী এ ধরণের দুর্ঘটনার শিকার হয়ে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাস-পাতালে চিকিৎসা নিয়েছেন। প্রতিনিয়ত দুর্ঘটনা ঘটলেও বোরাক নামের ওই অটো রিকসার এক্সেলের অরক্ষিত জায়গাটিতে ঢাকনা লাগানো হচ্ছে না। ফলে দুর্ঘটনাও বন্ধ হচ্ছে না।
রাজশাহী ট্রাফিক পুলিশের ইনচার্জ রায়হান জানান, মহানগরীর ৮০ শতাংশ দুর্ঘটনাই এখন অটো রিকসার কারণে ঘটছে। ওই অটো রিকসা দুই থেকে তিন জন যাত্রীর জন্য তৈরি হলেও তাতে ৮ থেকে ৯ জন করে যাত্রী তোলা হচ্ছে। চালকের পেছনে লাগানো হচ্ছে অতিরিক্ত সিট। যাত্রী ও চালকের সিটের মাঝখানে ফাঁকা জায়গা দিয়ে প্রায়ই নারীদের ওড়নার নিচে নেমে অটো রিকসার এক্সেলে জড়িয়ে যাচ্ছে। তিনি জানান, বিআরটিএ’র অনুমোদনহীন ওই অটো রিকসার কোন রুট পারমিট নেই। যে কারণে তাতে সিট ক্যাপাসিটিও লেখা থাকে না। রিকসা ও টেম্পুতে সাধারণত দুই থেকে তিনজন যাত্রী বহন করা হয়ে থাকে। অটো রিকসাতেও কোন ক্রমেই তিন জনের বেশি যাত্রী বহন করা উচিত নয়। তারপরও মালিকরা নিজেদের স্বার্থে অতিরিক্ত সিট লাগিয়ে ব্যবহার করে চলেছেন।

পাতাটি ২৬৭ বার প্রদর্শিত হয়েছে।

সংগ্রহকারী:

 মন্তব্য করতে লগিন করুন