logo

   

বিস্তারিত সংবাদ

News Photo নগরীতে বিএনপি’র বিক্ষোভ
বেগম খালেদা জিয়াকে ক্যান্টনমেন্টস’ বাড়ি থেকে উচ্ছেদের প্রতিবাদে বিএনপি এবং তার অঙ্গ সংগঠন সমূহ নগরীতে গতকাল শনিবার বিক্ষোভ মিছিল করেছে। বিএনপির চেয়ারপার্সন ও বিরোধী দলীয় নেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে ক্যান্টনমেন্টস’ বাড়ি থেকে উচ্ছেদের প্রতিবাদে আজ রোববার দেশব্যাপি হরতাল আহবান করে বিএনপি। এই হরতালের সমর্থনে গতকাল শনিবার বিকেলে নগরীতে জেলা ছাত্রদলের মিছিলে বাধা প্রদান করে পুলিশ।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, খালেদা জিয়াকে বাড়ি থেকে উচ্ছেদের প্রতিবাদে আহূত হরতাল সমর্থনে জেলা ছাত্রদল সভাপতি শফিকুল আলম সমাপ্তের নেতৃত্বে ছাত্রদলের একটি মিছিল বিকেল ৪টায় লোকনাথ হাই স্কুলের গেট থেকে বের হয়। মিছিলটি প্রধান সড়কে ওঠা মাত্র পুলিশ মিছিলে বাধা প্রদান করে। এরপর নেতাকর্মীরা মিছিলের মোড় ঘুরিয়ে নিয়ে সদর হাসপাতালের মোড়ের দিকে চলে যায়। সেখান থেকে মিছিলটি ঘুরে পুনরায় সোনাদীঘি মোড়ে আসে। সেখানে ছাত্রদল নেতাকর্মীরা এক পথ সভায় মিলিত হয়। এতে বক্তব্য রাখেন জেলা বিএনপির যুব বিষয়ক সম্পাদক সাজেদুর রহমান মার্কনী, জেলা ছাত্রদলের সভাপতি শফিকুল আলম সমাপ্ত, জেলা যুবদল আহবায়ক আনোয়ার হোসেন, উজ্জল প্রমুখ। পথসভা শেষে ছাত্রদল নেতা কর্মীরা পুনরায় মিছিল নিয়ে জিরো পয়েন্টের দিকে আসতে চেষ্টা করলে পুলিশ আবারো মিছিলে বাঁধা দেয়। এসময় ছাত্রদল নেতাকর্মীদের সাথে পুলিশের ধস্তা-ধস্তি হয়। ছাত্রদল দাবি করেছে পরাগ নামে এক ছাত্রদল নেতা এ সময় পুলিশের মারপিটে আহত হয়েছেন। ঘটনার সময় কেবা কারা সেখানে একটা ইট নিক্ষেপ করলে মনিচত্বরে একটা বিল বোর্ডে এসে সেই ইট লাগে। এতে ভেঙে পড়া কাঁচে এক পুলিশ সদস্য আহত হয়। পুলিশ এ সময় ২ জন ছাত্রদল কর্মীকে আটকে রাখলেও পরিসি’তি নিয়ন্ত্রণে আসার পর তাদেরকে ছেড়ে দেয়া হয়। সেখানে বাধা পেয়ে ছাত্রদল কর্মীরা বিভিন্ন পাড়া মহল্লায় গিয়ে খণ্ড খণ্ড মিছিল করেছে।
ওদিকে খালেদা জিয়াকে বাস ভবন থেকে উচ্ছেদের প্রতিবাদে বিএনপি ও তার অঙ্গ সংগঠন নগরীতে বিক্ষোভ মিছিল করেছে। সকালে বিএনপির কেন্দ্রিয় যুগ্ম মহাসচিব ও রাজশাহী মহানগর সভাপতি মিজানুর রহমান মিনু, মহানগর সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. শফিকুল হক মিলন ও মহানগর যুবদলের আহবায়ক মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল এর নেতৃত্বে একটি মিছিল নগরীতে বের হয়। মিছিল শেষে একটি সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। এতে বক্তব্য দানকালে মিজানুর রহমান মিনু বলেন, হীনস্বার্থ হাসিল করার জন্য শেখ হাসিনা আদালত ও প্রশাসনকে ব্যবহার করছে। তারা বিরোধী দলকে নিশ্চিহ্ন করতে ষড়যন্ত্র শুরু করেছে। দেশের মানুষ এই ষড়যন্ত্রের জবাব দেবে। এ সময় অন্যান্যের মধ্যে আরো উপসি’ত ছিলেন, বিএনপির কেন্দ্রিয় সদস্য সাবেক এমপি আজিজুর রহমান, মহানগর যুবদলের যুগ্ম আহবায়ক আসলাম সরকার, ওয়ালিউল হক রানা, ছাত্রদল সভাপতি মাহফুজুর রহমান রিটন, সাধারণ সম্পাদক মাইনুল হোসেন চৌধুরী শান্ত, মহিলা দল নেত্রী অ্যাড. রওশন আরা পপি প্রমুখ।
ওদিকে জেলা বিএনপির সভাপতি অ্যাড. নাদিম মোস্তফা ও সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. কামরুল মনির এক বিবৃতিতে খালেদা জিয়াকে বাড়ি থেকে উচ্ছেদের নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন এবং হরতাল পালনের জন্য সকলের প্রতি আহবান জানিয়েছেন। তারা বলেন, খালেদা জিয়াকে তার বাসভবন থেকে উচ্ছেদ করা শুধুমাত্র বিরোধীদলকে দমন করার উদ্দেশ্যেই নয়। এটা ভারতের স্বার্থ রক্ষারও অন্যতম একটা কারণ। খালেদা জিয়াকে বাড়ি থেকে উচ্ছেদের প্রতিবাদ এবং হরতাল সমর্থনে রাজশাহীর বাঘা, চারঘাট, মোহনপুর, তানোর, মতিহার, বাগমারাসহ বিভিন্ন স’ানে বিক্ষোভ মিছিল হয়েছে জেলা বিএনপির উদ্যোগে। হরতাল নগরীতে বিক্ষোভ মিছিল করে। নগরীর ৯নং ওয়ার্ডে হরতাল সমর্থনে বিক্ষোভ মিছিল হয়্‌ মিছিল শেষে দরগাপাড়া মোড়ে পথসভা করা হয়। এতে উপসি’ত ছিলেন ৯নং ওয়ার্ড বিএনপি সভাপতি বাদশা হোসেন, সাধারণ সম্পাদক শফিকুল ইসলাম শাফিক, ছাত্রদলের কেন্দ্রিয় যুগ্ম সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ সুইট প্রমুখ। ৩৫ নং ওয়ার্ডে বিক্ষোভ মিছিল ও পথসভায় উপসি’ত ছিলেন, বিএনপির সহ-সভাপতি দিলোয়ার হোসেন, বিএনপি নেতা নাজমুল হক ডিকেল, মোখতার হোসেন প্রমুখ। জাতীয়তাবাদী স্বেচ্ছাসেবক দল রাজশাহী জেলা শাখা বিকেলে হরতাল সমর্থনে নগরীতে বিক্ষোভ মিছিল বের করে। মিছিল শেষে এক সমাবেশে বক্তব্য রাখেন, স্বেচ্ছাসেবক দলের জেলা সভাপতি তাজমুল আল টুটুল। অন্যান্যের মধ্যে উপসি’ত ছিলেন যুগ্ম আহবায়ক হাবিবুর রহমান, ফ্লাওয়ার নাজমুল হুদা বাবু, আবু সাঈদ লাল্টু, আব্দুস সামাদ। সুএ:সোনালী সংবাদ

পাতাটি ২৮০ বার প্রদর্শিত হয়েছে।

সংগ্রহকারী:

 মন্তব্য করতে লগিন করুন