logo



আমার লেখালেখি



আমার প্রিয় লেখা



আমার ছবিঘর



অনলাইনে আছেন

আব্দুল্লাহ-আল-নোমান এর নতুন বন্ধু নাজমুল


আমাদের সাথে আছেন ৩১ জন অতিথী
  

আব্দুল্লাহ-আল-নোমান এর অনলাইন ডায়েরী

আপনাদের সকলের উপর আল্লাহর শান্তি, রহমত এবং বরকত বর্ষিত হোক

ডায়েরী লিখছেন ৭ বছর ১০ মাস ২৬ দিন
মোট পোষ্ট ৬১টি, মন্তব্য করেছেন ১৫৪টি


রাজশাহী শিক্ষা বোর্ড কলেজ : ১২ শিক্ষার্থীর বিপরীতে ১৬ শিক্ষক নিয়োগ!

লিখেছেন : আব্দুল্লাহ-আল-নোমান       তারিখ: ২৭-০৯-২০১০



রাজশাহী শিক্ষা বোর্ড মডেল স্কুল অ্যান্ড কলেজে ব্যাপক দলীয় নিয়োগের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এছাড়া মাত্র ১২ শিক্ষার্থীর বিপরীতে ১৬ শিক্ষক এবং ৭ কর্মচারীকে নিয়োগ দেয়া হয়েছে।

রাজশাহী শিক্ষা বোর্ডের একটি প্রকল্পের আওতায় প্রায় ১০ কোটি টাকা ব্যয়ে জেলা স্টেডিয়ামের পাশে সপুরা এলাকায় রাজশাহী শিক্ষা বোর্ড মডেল স্কুল অ্যান্ড কলেজ প্রতিষ্ঠা করা হয়। গত ১ জুলাই থেকে ভর্তি কার্যক্রম শুরু হয়। একাদশ শ্রেণীতে ভর্তি হয় মাত্র ১২ শিক্ষার্থী। এর আগে গত ৩০ জানুয়ারি থেকে নয় শিক্ষক, এক প্রশাসনিক কর্মকর্তা, এক লাইব্রেরিয়ান, এক এমএলএসএস ও দুই সুইপার নিয়োগ দেয়া হয় কলেজ শাখার জন্য। এর পর থেকে শিক্ষার্থীদের চেয়ে বেশি শিক্ষক-কর্মচারী নিয়েই কার্যক্রম চলে আসছিল। এই অবস্থায় গত ৬ জুলাই রাজশাহীর একটি দৈনিকে এবং ১২ জুলাই ঢাকার একটি দৈনিকে আবারও কলেজ শাখার জন্য ছয়টি বিষয়ে সাত শিক্ষক, এক ক্যাশিয়ার এবং এক কম্পিউটার অপারেটর নিয়োগদানের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়। এসব পদের জন্য মোট ৯১টি আবেদন পড়ে। আবেদনকারীদের নিয়ে শুক্রবার সকাল থেকে লিখিত নিয়োগ পরীক্ষা এবং মৌখিক পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। লিখিত পরীক্ষায় অংশ নেন ৭৭ জন। পরে ওইসব পদে রাতেই নিয়োগ প্রক্রিয়া চূড়ান্ত করা হয়। ফলে এখন শিক্ষা বোর্ড মডেল স্কুল অ্যান্ড কলেজের শিক্ষকসংখ্যা দাঁড়াল ১৬ এবং কর্মচারীসংখ্যা দাঁড়াল সাতে। এর বিপরীতে শিক্ষার্থী রয়েছে মাত্র ১২ জন।

২০১১ সালের জানুয়ারিতে প্রাইমারি ও মাধ্যমিক স্কুল শাখায় এবং জুলাইয়ে আবারও একাদশ শ্রেণীতে শিক্ষার্থী ভর্তি করা হবে। এ অবস্থায় কলেজ শাখায় নতুন করে শিক্ষক নিয়োগ দিলে ১২ শিক্ষার্থীর পেছনে সরকারের অপচয় হবে লাখ লাখ টাকা। অথচ আর মাত্র তিন মাস বাকি থাকলেও স্কুল শাখায় কোনো শিক্ষক নিয়োগ দেয়া হয়নি। এ ব্যাপারে যোগাযোগ করা হলে প্রকল্প পরিচালক এবং রাজশাহী মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান প্রফেসর তানবিরুল ইসলাম সাংবাদিকদের বলেন, প্রাইমারি এবং মাধ্যমিক শাখার জন্য পরে শিক্ষক নিয়োগ দেয়া হবে। তবে প্রথম দিকে এই শিক্ষকরাই প্রাইমারি ও মাধ্যমিক শাখার ক্লাস নেবেন।

অন্যদিকে শিক্ষা বোর্ড মডেল স্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ ড. মকবুল হোসেন বলেন, কলেজ শাখায় প্রধান প্রধান বিষয়েই শিক্ষক থাকা দরকার। কাজেই ওইসব বিষয়েই শিক্ষক নিয়োগ সম্পন্ন করা হয়েছে।
এদিকে অভিযোগ উঠেছে, পরীক্ষায় ৭৭ প্রার্থী অংশ নিলেও এখানে সরকারদলীয় লোক নিয়োগ দিয়ে কলেজকে দলীয়করণের কারখানায় পরিণত করা হয়েছে। তবে বোর্ড কর্মকর্তারা তা অস্বীকার করে বলছেন, মেধার ভিত্তিতেই লোক নিয়োগ দেয়া হয়েছে।

২৯২৬ বার পঠিত

 
২৮-০৯-২০১০
মোঃ তরিকুল আলম বলেছেন: কজ্জসজার্চসমজটবচকজনমতদক


মন্তব্য করতে লগিন করুন।
  

সাম্প্রতিক মন্তব্য







ছবিঘরের নতুন ছবি