logo



আমার লেখালেখি



আমার প্রিয় লেখা



অনলাইনে আছেন

আব্দুল্লাহ-আল-নোমান এর নতুন বন্ধু নাজমুল


আমাদের সাথে আছেন ৫৪ জন অতিথী
  

আব্দুল্লাহ-আল-নোমান এর অনলাইন ডায়েরী

আপনাদের সকলের উপর আল্লাহর শান্তি, রহমত এবং বরকত বর্ষিত হোক

ডায়েরী লিখছেন ৭ বছর ৮ মাস ২৪ দিন
মোট পোষ্ট ৬১টি, মন্তব্য করেছেন ১৫৪টি


জাম্বুর ছেলে সাম্বু.......

লিখেছেন : তারছিড়া       তারিখ: ২১-০৯-২০১০



আজ বিকেল বেলা লক্ষিপুর গেছি ক্লাস করতে। রিক্সা থেকে নেমে মনে হল আজ ক্লাস এ যাব না। আগেই শুনছিলাম কালেক্টরের মাঠে ঈদ আনন্দ মেলা হচ্ছে। ভাবলাম মেলা থেকে ঘুরে আসি। চলে গেলাম মেলাতে। টিকিট মাত্র ৫ টাকা ভালোই লাগল এত কম হওয়ায়। টিকিট কেটে ঢুকলাম মেলাতে।

ঢুকে পুরো মেলাতে ২-৩ বার চক্কর দিলাম। খুব বেশি স্টল নাই। আর যা আছে তার বেশিরভাগই মহিলাদের জন্য। দেখলাম মেলাতে সার্কাস আসছে। সামনে যেতেই দেখতে পেলাম বিরাট বিরাট ২টা হাতি দাড়ায়ে আছে। আর ভেতর থেকে আওয়াজ আসছে...
" আসেন ভাই আমাদের সান্ধ্যকালীন শো এখনই শুরু হবে। এক টিকিটে ডাবল বিনোদন.. সার্কাস ও চলচিত্র তারকাদের সমন্বয়ে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। মূল আকর্ষণ চলচিত্র নায়িকা ও সেই দুর্ধষ ভিলেন জাম্বুর ছেলে ভয়ষ্কর মানব কখনোবা দানব হু হা হা হা হা সাম্বু, আপনারা বাইরে ঘুরাঘুরি না করে এথনই টিকেট সংগ্রহ করে ঢুকে পড়ুন শো এখনই শুরু হবে।"

যে লোকটা মাইকে কথা বলছিল তার কথায় আর্কষন অনুভব করলাম। ৬০ টাকা দিয়ে প্রতম শ্রেনীর একটা টিকেট কেটে ঢুকে পড়লাম। ঢুকে চেয়ার নিয়ে বসে পড়লাম।

কিছুক্ষন পর ২ বার ঘন্টা বেজে সার্কাস শুরু হল। প্রথমেই চরম একটা ধাক্কা খাইলাম। ৬ জন মহিলা হলুদ রং এর শাড়ি পরে এসে শুরু করল এই পদ্মা এই মেঘনা... এই গানটা, শুনে বুক ভেঙ্গে কান্না চলে আসছে.. একি সুর না চিৎকার?? ঐ ৬-৭ মিনিট খুব কষ্ট করে সহ্য করলাম। গান এর পর শুরু হলো নাচ এবার আরো বিরাট ধাক্কা হায়ঃ হায়ঃ একি .. একের পর এক নাচনেওয়ালী আসছে আর হাত পা ছোড়াছুড়ি করে চলে যাচ্ছে। তখন মনে হল শুধু শুধু ৬০ টি টাকা জলে দিলাম। ভাবলাম ক্লাস না করে সার্কাস দেখতে আমার শাস্তি এইগুলা। এর পর হঠাৎ করে ঘোষনা দিল এবার আসছে সুকন্ঠি.. সুরেলা.. পপ কুইন.. খুলনা বেতারের শিল্পী অমুক (নাম ভূলে গেছি)। তিনি এসে মুসলমানদের সালাম, হিন্দুদের নমস্কার ও অন্যান্যদের শুভেচ্ছা দিয়ে শুরু করলেন গান.. এক বিন্দু ভালবাসা দাও আমি এক সিন্ধু হৃদয় দিব........... গান কনে আসার পর আমার মনে হল ছাইড়া দে মা.. কাইন্দ্যা বাচি... মনে হইল হাতির কাছে যাইয়া হাতির পায়ের নীচে জীবনটা দিয়া দেই। কিযে বিচ্ছিরি তার গানের গলা এর সাথে আছে আছে বিভিন্ন শারিরিক অংগভংগি। আমি ওনার গান না শুনে জোকারদের দেখছিলাম। ওদেরই বেশি ভালো লাগছিল।

অবশেষে মার মনে দয়া হল.. তিনি তার গান খতম করে বিদায় নিলেন। হাফ ছেড়ে বাচলাম।

এবার শুরু হল মূল পর্ব সার্কাস। এই পর্বটা বেশ উপভোগ্য ছিল। খুবই ভালো লাগল। কিছু কিছু কসরত দেখে মনের মধ্য বেশ উত্তেজনা অনুভব করছিলাম। এই পর্বটা সত্যই খুব উপভোগ করলাম। মনে মনে ভাবলাম যাক ৬০ টাকা খুব একটা বৃথা যায় নাই। ঘন্টা খানেক চলল এই সার্কাস। অনেক গুলো খেলাই দেখালো। সার্কাস গ্রুপের নাম "দি চ্যালেন্জার সার্কাস" সার্কাস শেষ হল।

এবার মাইকে বলল এবার চলচিত্র তারকাদের অনুষ্ঠান শুরু হবে। প্রথমেই আসবে সুপারস্টার মডেল, হার্টথ্রুব, তুমুল জনপ্রিয় মডেল কন্য মুনমুন।

তুমুল জনপ্রিয় মডেল কন্য মুনমুন প্রবেশ করলেন। তারে দেখার পর অনেক চেষ্টা করলাম এই মূখ কোনদিন কি টিভিতে দেখছি? না অনেক চেষ্টা করেও মনে করতে পারলাম না। বুঝতে পারলাম না এই মহিলাটা কিভাবে এত জনিপ্রয়, সুপারস্টার মডেল, হার্টথ্রুব হল!!

উনার নাচ দেখে অবশ্য খুব একটা খারাপ লাগল না। আগের গুলার চেয়ে হাজারগুন ভাল। অবশেষে তিনি নাচ শেষ করে চলে গেলেন আর যাওয়ার আগে কথা দিয়ে গেলেন আবার আসবেন।

এবার আসলেন একুশে টিভির ড্যান্স ডিরেক্টর রবিন খান। উনি ঢুকেই হাই হ্যালো দিলেন। আমি অনেকক্ষন ধরে বোঝার চেষ্টা করলাম যে উনি আসলে কি পুরুষ না মহিলা । নাকি কমন জেন্ডার?? ব্যার্থ হলাম। তো উনি হিন্দি গানের সাথে নাচ শুরু করলেন। যা দেখালেন ভালোই দেখালেন। এরপর আবার আরেক নাচ শুরু করলেন একটা অচলিল টাইপের বাংলা গানের সাথে। উনার নাচ দেখে ভাবলাম কিভাবে একুশে টিভিতে এই জিনিস টা চাকরী করে ড্যান্স ডিরেক্টর হিসিবে? নাচ শেষে অবশেষে জিনিসটা বিদায় নিল।

অবশেষে সেই মাহেন্দ্রক্ষন আসল ...... ঘোষনা এল আসছেন ... মানব আকারের দানব.. ভয়ঙ্কর দৈত্য ..... জাম্বুর ছেলে ..... সাম্বু.....

হু হু হু হু হু হাঃ হাঃ হাঃ হাঃ অট্টহাসি দিয়ে ভয়ঙ্কর দৈত্য প্রবেম করলেন। কিন্তু যা দেখলাম পেট পাছা মোটা আর মাথা ও পা চিকন একটা মানুষ প্রবেশ করল। তার ভিতর দানব, দৈত্যর কিছুই খুজে পেলাম না। তিনি ঢুকেই এই স্টাইলে মুসলমানদের সালাম, হিন্দুদের নমস্কার ও অন্যান্যদের শুভেচ্ছা দিয়ে শুরু করলেন, প্রথমেই ক্যমনে আইলেন ফিলমে.. কয়ডা ফিলমে অভিনয় করছেন বর্ণনা দিলেন।

এর পর শুরু করলেন তার অভিনীত বাঘের বাচ্চা ফিলমের অভিনয়। এর মধ্য চিৎকার আর অট্টহাসি ছাড়া আর কিছুই বুঝতে পারলাম না।
তার অভিনয় দেখতে দেখতে ধৈর্য্য হারায়ে গেল। তিনি শেষ করলেন আর অভিনয়।

এবার উনি বললেন সবার জন্য উনি এবার নাচবেন এবং তার সাথে সঙ্গ দিবেন সুপারস্টার মডেল, হার্টথ্রুব, তুমুল জনপ্রিয় মডেল কন্য মুনমুন।
বলনা কবুল... এই গানের তালে তালে শুরু হল তাদের নাচ। সাম্বু ভাইয়ের ঐ দেহ নিয়া যা নাচতেছিলেন তা দেইখা আমি আর বইসা থাকতে পারলাম না। আল্লাহর কাছে ক্ষমা চাইলাম আর কইলাম আমারে আর শাস্তি দিও না। উইঠা সোজা বাইরে চলে আসলাম।

এরপার মেলার চত্বর থাইকা ৬ টাকা দিয়া ২ টা পাপড় কিনা রাইত ১০ টার সময় রূমে চইলা আসলাম।

৪১৭৯ বার পঠিত

 
২১-০৯-২০১০
আব্দুল্লাহ-আল-নোমান বলেছেন: :) সুন্দর পোষ্ট


২১-০৯-২০১০
আলম বলেছেন: কত মজার সার্কাস ;)


মন্তব্য করতে লগিন করুন।
  

সাম্প্রতিক মন্তব্য







ছবিঘরের নতুন ছবি