logo



আমার লেখালেখি



আমার প্রিয় লেখা



আমার ছবিঘর



অনলাইনে আছেন

আব্দুল্লাহ-আল-নোমান এর নতুন বন্ধু নাজমুল


আমাদের সাথে আছেন ১০ জন অতিথী
  

আব্দুল্লাহ-আল-নোমান এর অনলাইন ডায়েরী

আপনাদের সকলের উপর আল্লাহর শান্তি, রহমত এবং বরকত বর্ষিত হোক

ডায়েরী লিখছেন ৭ বছর ৬ মাস ২৫ দিন
মোট পোষ্ট ৬১টি, মন্তব্য করেছেন ১৫৪টি


রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ছাত্রলীগের কর্মীকে বহিষ্কার

লিখেছেন : আব্দুল্লাহ-আল-নোমান       তারিখ: ০৫-০৪-২০১০



রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রীকে লাঞ্ছিত করার ঘটনায় ছাত্রলীগ ক্যাডার কাওসারকে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বহিস্কার করা হয়েছে। রোববার বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিসিপ্লিনারি (শৃঙ্খলা) বোর্ডের জরুরি সভায় এ সিদ্ধান- গৃহিতহয়। মার্কেটিং বিভাগের চতুর্থ বর্ষের ছাত্র মো. কাওসার আলম বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হলের আবাসিক ছাত্র। এদিকে গত শনিবার রাতে দ্বিতীয় দফা আটক করে কাওসারকে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের শৃঙ্খলা বোর্ডের সদস্য সচিব ও প্রক্টর অধ্যাপক ড. জাকারিয়া জানান, কাওসারের বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগগুলো পর্যা-লোচনা করে তাকে বহিস্কার করা হয়েছে। সে আর কোন দিন বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হতে পারবে না। সূত্র জানায়, গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় হলে ফেরার সময় তাপসী রাবেয়া হলের সামনে বাংলা বিভাগের তৃতীয় বর্ষের এক ছাত্রীকে রিক্সা থেকে নামিয়ে মারধর করে কাওসার। সে গত বছরের শেষ দিকে প্রেম প্রস-াবে রাজি না হওয়ায় একই ছাত্রীকে লাঞ্ছিত করে। তখন প্রক্টরের নিকট থেকে মুচলেকা নিয়ে ছাড় পায় কাওসার। সে সময় ছাত্রলীগ থেকেও সাময়িক বহিস্কার করা হয়। শনিবার ওই ছাত্রী বাদী হয়ে মতিহার থানায় একটি মামলা করেন। মামলার প্রেক্ষিতে ওইদিন বেলা ১১টার দিকে নিজ হল থেকে পুলিশ কাওসারকে গ্রেপ্তার করলেও ১০ মিনিটের মধ্যেই রহস্যজনকভাবে ছেড়ে দেয় পুলিশ। পরে ওপর মহলের নির্দেশে রাতে আবারও তাকে গ্রেপ্তার করে জেল হাজতে পাঠানো হয়। এদিকে ছাত্রী লাঞ্ছিতের ঘটনায় শ্রক্রবার রাতেই তাপসী রাবেয়া হলের ছাত্রীরা কাওসারের শাসি-র দাবিতে বিক্ষোভ করে। তারা চার শতাধিক ছাত্রীর গণস্বাক্ষর সম্বলিত স্মারকলিপি হল প্রাধ্যক্ষের মাধ্যমে উপাচার্যকে দেয়। স্মারকলিপিতে কাওসারের বিভিন্ন অপকর্মের বর্ণনা তুলে ধরা হয়। এছাড়া রাবি শাখা মহিলা পরিষদ ছাত্রফ্রন্ট ও ছাত্র ইউনিয়ন নেতারা পৃথক বিবৃতিতে কাওসারের বিরুদ্ধে দ্রুত আইনানুগ ব্যবস’া নেয়ার দাবি করেন। গতকাল সকালে নিরাপত্তার চেয়ে ওই ছাত্রী বাংলা বিভাগের সভাপতি বরাবর একটি দরখাস- প্রদান করে। সংশ্লিষ্ট বিভাগ বিষয়টি প্রক্টরিয়াল বডিকে অবহিত করলে রোববার বেলা ১১টায় উপাচার্য দপ্তরে উপাচার্য অধ্যাপক ড. এম আব্দুস সোবহানের সভাপতিত্বে শৃঙ্খলা বোর্ডের সভায় কাওসারের বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগগুলো বিস-ারিত পর্যালোচনা করে সর্ব সম্মতিক্রমে তাকে বহিস্কারের সিদ্ধান- নেয়া হয়। প্রক্টর বলেন, ওই ছাত্রীর নিরাপত্তার বিষয়ে আমরা পদক্ষেপ নেব। নারী ও শিশু নির্যাতন মামলায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে কাওসারকে শনিবার রাতে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে বলে মতিহার থানার কর্তব্যরত কর্মকর্তা (এসআই) সোহেল রানা জানান।

৩৫৭১ বার পঠিত

 
০৬-০৪-২০১০
আবু জাফর মো: শামসুদ্দিন বলেছেন: এটা ছাত্রলিগের লোক ঠকানো ও দেখান চালমাত্র ।


মন্তব্য করতে লগিন করুন।
  

সাম্প্রতিক মন্তব্য







ছবিঘরের নতুন ছবি